আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের বিজেপির রাজ্য সভাপতি হলেন দিলীপ ঘোষ। ২০২১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বেই রাজ্যে লড়াই করবে বিজেপি। এটা ঘটনা দিলীপের উপর অনাস্থা প্রকাশ করেছিলেন রাজ্য বিজেপির একাধিক নেতা। কিন্তু কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব আস্থা রাখল দিলীপ ঘোষের উপরেই। টানা দ্বিতীয়বার রাজ্য সভাপতির পদে বসলেন খড়গপুরের সাংসদ। 
২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় দিলীপের নেতৃত্বে যথেষ্ট ভাল ফল করেছিল বিজেপি। ৪২ আসনের মধ্যে ১৮ আসন পায় বিজেপি। তারপর থেকেই দলে গুরুত্ব বাড়ছিল দিলীপ ঘোষের। কিন্তু দিনদিন এত বিতর্কিত মন্তব্য তিনি করছিলেন, যে রাজ্য সহ কেন্দ্রীয় নেতারাও বিরক্ত হয়ে যাচ্ছিলেন। তার উপর বিধানসভার তিনটি কেন্দ্রে উপনির্বাচনে বিজেপি মুখ থুবড়ে পড়ে। তিনটি আসনই জিতে নেয় রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। তারপর থেকে অসন্তোষ তীব্র হয় রাজ্য বিজেপির অন্দরে। কিন্তু বৃহস্পতিবার সর্বসম্মতিক্রমে রাজ্য সভাপতি পদে দ্বিতীয়বার দিলীপ ঘোষের নাম ঘোষণা যাবতীয় বিতর্কে জল ঢেলে দিল। 
রাজ্য কমিটির বিশেষ বৈঠকের একদিন আগেই বিজেপির সংগঠন নির্বাচনের সহকারী পর্যবেক্ষক তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরেন রিজিজু মনোনয়নপত্রে দিলীপ ঘোষের সই করিয়ে নিয়ে যান। নতুন করে আর কেউ মনোনয়ন না দেওয়ায় বুধবারই পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল যে দ্বিতীয়বারের জন্য রাজ্য বিজেপির সভাপতি পদে আসতে চলেছেন দিলীপ। বৃহস্পতিবার শুধু শিলমোহর পড়ল। আগামী তিন বছর দিলীপ ঘোষই থাকবেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি। ফের দায়িত্ব পাওয়ার পর দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‌লড়াকু কর্মীদের পাশে সবসময় আছি। ময়দান ছাড়বে না বিজেপি। কর্মীদের আত্মত্যাগে ১৮ জন সাংসদ রয়েছে বাংলায়। কর্মীদের লড়াই, আত্মত্যাগে দলের উত্থান। পদ নয়, দলে আসলে পতাকা দেব। ‌কর্মীদের মনোবল বিজেপির সম্পদ। সভাপতি হিসেবে বাকি কাজ শেষ করব।’‌    

জনপ্রিয়

Back To Top