সব্যসাচী ভট্টাচার্য,দার্জিলিং: অমর সিং রাইয়ের প্রচারে দার্জিলিং এলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বুধবার বিকেলে চোপড়া থেকে দার্জিলিং এসে পৌঁছন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর একটু পরেই কালিম্পং থেকে দার্জিলিং পৌঁছন রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসও। বৃহস্পতিবার দার্জিলিং সুপার মার্কেট সংলগ্ন মোটরস্ট্যান্ডে সভা মুখ্যমন্ত্রীর। ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর সভাকে কেন্দ্র করে উৎসাহের বাতাবরণ পাহাড়ে। পোস্টার–‌ব্যানারে সেজে উঠেছে শৈলশহর। ঘুম থেকে ম্যাল— ব্যানার, পোস্টারে সেজে উঠেছে। মঞ্চ বাঁধার কাজ শেষ পর্যায়ে। ইতিমধ্যে লেবং স্টেডিয়ামে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা ও তৃণমূলের যৌথ কর্মিসভা হয়েছে। ভিড়ে ঠাসা সেই কর্মিসভা থেকেই কার্যত প্রচারের কাজ শুরু হয়ে যায় পাহাড়ে। 
এই আসনে ভোট ১৮ এপ্রিল। এই মুহূর্তে প্রচার তুঙ্গে। দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থীর সমর্থনে নকশালবাড়ি ও চোপড়ায় সভা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। পাহাড়ে তাঁর প্রথম সভা বৃহস্পতিবার। এই সভায় মুখ্যমন্ত্রী কী বার্তা দেন, সেদিকে তাকিয়ে রয়েছেন পাহাড়বাসী। দার্জিলিঙের সভার পর শুক্রবার কার্শিয়াঙে সভা করার কথা মুখ্যমন্ত্রীর। এরপর ১৩ এপ্রিল শিলিগুড়ির বাঘাযতীন পার্কে একটি সভা রয়েছে। এমনিতেই প্রচারে বিরোধীদের থেকে অনেক এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল। তার ওপর মুখ্যমন্ত্রীর সভার পর এই আসনে বিরোধীদের দাঁত ফোটানোর জায়গা থাকবে না, এমনটাই মনে করছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। বুধবার দার্জিলিং পৌঁছেই সভাস্থল পরিদর্শন করেন অরূপ বিশ্বাস। ছিলেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সভাপতি তথা জিটিএ–‌র প্রশাসনিক বোর্ডের চেয়ারম্যান বিনয় তামাং। মোর্চা ও তৃণমূল সূত্রে জানা গেছে, সমাবেশে বিপুল পরিমাণ জনসমাগম হবে। তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, মুখ্যমন্ত্রী পাহাড়ের যে উন্নয়ন করেছেন, তার টানেই কাতারে কাতারে মানুষ ভিড় জমাবেন।

জনপ্রিয়

Back To Top