বিজয়প্রকাশ দাস, পূর্ব বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান শহরের সোনাপট্টিতে সিবিআই পরিচয় দিয়ে কয়েক লক্ষ টাকা মূল্যের ৫০ গ্রাম সোনা হাতিয়ে চম্পট দিল দুই দুষ্কৃতী। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এই চাঞ্চল্যকর ঘটনায় ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে বড়বাজারের সোনাপট্টি এলাকায়। খবর পেয়ে পুলিস এলে ওই দুই দুষ্কৃতীর সিসিটিভির ফুটেজ তুলে দেওয়া হয় পুলিসের কাছে। অভিযোগ, ইতিপূর্বে মিঠাপুকুরের একটি সোনার দোকানের ভিতরে ঢুকে পিস্তল দেখিয়ে ডাকাতির চেষ্টা, ক্লোরফর্ম ব্যবহার করে ব্যাবসায়ীকে বেহুঁশ করার চেষ্টা, গোলাপবাগের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা লুঠ ইত্যাদি ঘটনা ঘটেছে। এই সব নানা ঘটনার তথ্য তুলে দেওয়া হলেও কাউকেই এখনও পর্যন্ত ধরতে পারেনি পুলিস। তবে পুলিস তদন্ত শুরু করেছে বলে জানা গেছে। সেই জায়গায় ব্যবসাদারদের অভয় দেওয়ার জন্য কয়েকজন সিভিক ভলেন্টিয়ারকে সোনাপট্টিতে নিরাপত্তার কাজে নিয়োগ করা হয়েছে। তবে তাতে কাজের কাজ কিছু হয়েছে বলে মনে করছেন না ব্যবসায়ীরা। জানা গিয়েছে, বাঁকুড়া জেলার পাত্রসায়ের থেকে কৈলাশ বৈরাগ্য নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী ব্যবসার কাজে বর্ধমানের জহুরিপট্টিতে এসেছিলেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা নাগাদ স্থানীয় অন্নপূর্ণা মন্দিরের কাছে হঠাৎ ওই ব্যক্তিকে ঘিরে ধরে দু’‌জন অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি। তারা নিজেদের সিবিআইয়ের লোক বলে পরিচয় দিয়ে ওই ব্যবসায়ীর ব্যাগ তল্লাশি শুরু করে। তখনই তল্লাশির নামে ব্যাগের ভিতর থেকে ৫০ গ্রামের মত সোনা হাতিয়ে নেয়। সেই সময় স্থানীয় কয়েকজন ব্যবসায়ীকে তাদের কাছে আসতে দেখে ওই দু’‌জন তঁাকে ধাক্কা মেরে বাইক নিয়ে চম্পট দেয়। এই ঘটনার পর জেলা স্বর্ণ শিল্প ব্যবসায়ী সমিতি বর্ধমান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। সমিতির সম্পাদক স্বরূপ কোনার জানান, স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের ওপর একের পর এক ঘটনা ঘটায় আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। তাই নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থেই গোটা সোনাপট্টি এলাকায় ৬ লক্ষ টাকা খরচ করে একাধিক সিসি টিভি বসানো হয়েছে। নানা ঘটনার ফুটেজ পুলিসের হাতে তুলেও দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না বলে অভিযোগ তুলেছে সমিতি।

 সিসি টিভি ফুটেজে দেখা যাচ্ছে দুই দুষ্কৃতী। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top