আজকালের প্রতিবেদন

করোনা সংক্রমণকে দূরে রাখতে মানুষকে সচেতন হওয়ার কথাই বারে বারে বলছে স্বাস্থ্য দপ্তর। যে কারণে নিয়মিত টুইটারে বিশিষ্ট চিকিৎসকদের পরামর্শ তুলে দিচ্ছে। মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি রাজ্য সরকারের ব্যবস্থাপনায় কী কী সুবিধা রয়েছে তা অডিও–ভিডিওর মাধ্যমে বুঝিয়ে দিতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তর।  
কারা হোম আইসোলেশনে থাকতে পারেন, কেন প্রয়োজন? থাকতে হলে কী কী মেনে চলা জরুরি?‌‌ হোম আইসোলেশনে করোনায় ভেন্টিলেশনের প্রয়োজন কতটা, করোনা হলেই কি ভেন্টিলেশন লাগবে? রাজ্যে ভেন্টিলেশনের সুবিধা কীরকম রয়েছে? এই সমস্ত প্রশ্নের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বিশিষ্ট চিকিৎসকরা নিয়মিত দিচ্ছেন। ডাঃ অভিজিৎ চৌধুরি, ডাঃ দীপ্তেন্দ্রকুমার সরকার, ডাঃ রাজা ধর, ডাঃ যোগিরাজ রায়ের মতো বিশেষজ্ঞরা মতামত দিচ্ছেন।
অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে সামাজিক দূরত্ববিধি মানা হচ্ছে না, মাস্কও কেউ কেউ পরছেন না। কেন মাস্ক পরার অভ্যাস ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা জরুরি সেই বিষয়ে ডাঃ অভিজিৎ চৌধুরি বলেছেন, ‘‌করোনা এত তাড়াতাড়ি যাবে না। হয়তো আগামী অনেক মাস বা বছর মাস্ক পরাটাকে জীবনের একটা অঙ্গ করে নিতে হবে। ভয় না পেয়ে সামান্য সচেতনতাবোধ নিজের মধ্যে গড়ে তুলতে হবে।’‌ করোনা আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে যে–‌কোনও ওষুধ নিজের মতো খেয়ে নেওয়াটা উচিত নয়। অযথা ভয় পেয়ে ভুল কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়াও সমীচীন নয়, এই বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা।  
করোনা থেকে সুস্থ হয়ে শুক্রবার বেলভিউ ক্লিনিক থেকে বাড়ি ফিরলেন এসএসকেএমের সার্জারি বিভাগীয় প্রধান ডাঃ মাখনলাল সাহা। এদিকে রাজ্যে করোনার সংক্রমণ ক্রমশ বাড়ছে। এদিন স্বাস্থ্য দপ্তরের বুলেটিনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ১৯৮ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৭ হাজার ১০৯ জন। বর্তমানে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৮ হাজার ৮৮১ জন। এদিন নতুন করে ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮৮০ জনে। অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫২২ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। এখনও পর্যন্ত করোনা সংক্রমণ মুক্ত হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন মোট ১৭ হাজার ৩৪৮ জন। সুস্থতার হার ৬৩.‌৯৯ শতাংশ। এখনও পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা ৫ লক্ষ ৯৩ হাজার ৯৬৭টি।  
এদিনের বুলেটিন অনুযায়ী নতুন করোনা আক্রান্তদের মধ্যে কলকাতা ৩৭৪, উত্তর ২৪ পরগনা ৩২৮, হাওড়া ১৩০, দক্ষিণ ২৪ পরগনা ১০৪ জন–‌সহ বিভিন্ন জেলা থেকে আক্রান্ত হয়েছেন।  
সিআইডি–র অ্যাডিশনাল স্পেশ্যাল সুপারিনটেনডেন্ট পদমর্যাদার এক আধিকারিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আপাতত তিনি হোম আইসোলেশনে রয়েছেন বলে সূত্রের খবর।

জনপ্রিয়

Back To Top