আজকালের প্রতিবেদন
‘‌করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বেলেঘাটা আইডি–র চিকিৎসক’‌। ভুয়ো এই তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে গ্রেপ্তার হলেন এক যুবতী। নাম চন্দ্রিমা ভৌমিক। এদিকে, নিজের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর ফেসবুকে ছড়িয়ে গ্রেপ্তার হলেন ভাটপাড়ার এক যুবক।
দেশ জুড়ে চলছে করোনা–‌আতঙ্ক। এরকম পরিস্থিতিতে সোশ্যল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে এক চিকিৎসকের আক্রান্ত হওয়ার খবর। চিন্তা বাড়ে রাজ্যবাসীর। সত্যতা যাচাই না করে অনেকেই পোস্টটি শেয়ার করতে থাকেন। ফলে বিভ্রান্তি বাড়তে থাকে। বিদ্যুৎগতিতে ছড়ায় গুজব। পোষ্টের জেরে সমস্যায় পড়তে হয় ওই চিকিৎসকের পরিবারকে। শুক্রবার রাজ্যের স্বাস্থ্যদপ্তরের তরফে নিশ্চিত করে জানানো হয়, বেলেঘাটা আইডির ওই চিকিৎসক করোনা–‌আক্রান্ত হননি। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এ ধরনের খবরে বিভ্রান্তি তৈরি হচ্ছে। এফআইআর দায়ের হয়। যাঁর প্রোফাইল থেকে ভুয়ো এই খবর ছড়িয়েছে, তাঁকে চিহ্নিত ও খুঁজে বের করার দায়িত্ব দেওয়া হয় সাইবার থানাকে। তদন্তে নেমে চন্দ্রিমাকে গ্রেপ্তার করা হয়। জানা গেছে, তাঁর বাবা কলকাতা শহরের একজন নামী চিকিৎসক। চন্দ্রিমার বিরুদ্ধে ভুয়ো খবর ছড়ানোর অভিযোগে মামলা রুজু হয়েছে।
এদিকে, ফেসবুকে হঠাৎ ছড়িয়ে পড়ে ভাটপাড়ার কাঁকিনাড়া মনসাতলা এলাকার যুবক রানা দেবনাথের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ভুয়ো তথ্য। বলা হয়, ওই ব্যক্তির সঙ্গে পরিবারের অন্যদের গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে। এ থেকে ওই এলাকায় তীব্র আতঙ্ক ছড়ায়। খবর পেয়ে পুলিশ তদন্তে নামে। জানতে পারে, ওই ব্যক্তির জ্বর হয়েছিল। এরপরই তিনি তাঁর করোনা হয়েছে বলে মিথ্যে গুজব ছড়িয়ে দেন ফেসবুকে। পুলিশ রানা দেবনাথকে গ্রেপ্তার করেছে।
উল্লেখ্য, করোনা নিয়ে নানান রকম গুজব ছড়াচ্ছে। এনিয়ে কড়া মনোভাব নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। শুক্রবারই তিনি জানিয়ে দেন, ‘‌এ ধরনের খবর যাঁরা ছড়াচ্ছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top