আজকালের প্রতিবেদন‌: ‌বুলবুল ঝড়ের তাণ্ডবের পর কেন্দ্র এখনও পর্যন্ত কোনও টাকা দেয়নি। অথচ প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী টুইট করে জানিয়েছিলেন সাহায্য করবেন। সোমবার বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি একথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘‌২৩ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। বাড়ি–ঘর, পানের বরজ, ধান, ধানজমি ক্ষতির সম্মুখীন। কেন্দ্রীয় দল ক্ষতিগ্রস্ত জেলাগুলি পরিদর্শন করেছেন। তাঁরা রাজ্যের আধিকারিকদের সঙ্গেও কথা বলেছেন। আমরা পুনর্গঠনের কাজ শুরু করে দিয়েছি। ৫ লক্ষ বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির সদস্যদের বাংলা আবাস যোজনায় ঘর করে দেওয়া হবে। অর্থদপ্তর ১২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। কৃষি বিমার ক্ষেত্রে আমরা সব ধরনের সাহায্য করব। কিন্তু কেন্দ্র এখনও কিছু করেনি। একটি টাস্ক ফোর্স গঠন করা হয়েছে মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে। ওই ভয়ঙ্কর ঝড়ে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের ছেলেমেয়েদের জন্য রাজ্য সরকার ৪০ হাজার হ্যারিকেন, কেরোসিন এবং ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের জন্য স্টোভ, হাঁড়ি, কড়াই, চাল, বাচ্চাদের খাবার, পোশাক দেওয়া হবে। ৬ লক্ষ রান্নার জিনিসের কিট দেওয়া হবে।’‌
 বুলবুল ঝড়ের বিষয়ে প্রশ্ন করেন তৃণমূল বিধায়ক গীতারানি ভঁুইয়া। মুখ্যমন্ত্রী জানান, ধান নিয়ে চিন্তার কোনও কারণ নেই। রাজ্যে উদ্বৃত্ত ধান হয়। প্রাকৃতিক দুর্গতদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য ‘‌ফ্লাড শেল্টার’‌ তৈরি করা হচ্ছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের মন্ত্রী জাভেদ খান জানিয়েছেন, বুলবুল ঝড়ের তাণ্ডবে দুই ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর ও কলকাতায় অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ ২৩,৮১১.‌১৬ কোটি টাকা। হাওড়া এবং হুগলিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ইতিমধ্যেই বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের জন্য রাজ্য অর্থ বরাদ্দ করে তা দিয়ে দিয়েছে কৃষকদের। ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুতের লাইন ঠিক করা হয়েছে। কৃষকদের দেওয়া হয়েছে মিনিকিট।

জনপ্রিয়

Back To Top