গৌতম মণ্ডল,মথুরাপুর: ‌১৮ বছর বয়স হওয়ার আগেই ওদের বিয়ে ঠিক করে ফেলেছিলেন বাবা–মা। কিন্তু বিয়েতে রাজি হয়নি ওরা। স্কুলের হেডস্যার আর পুলিসের সাহায্য নিয়ে নিজেরাই বন্ধ করেছিল নিজেদের বিয়ে। প্রতিজ্ঞা করেছিল, ১৮ বছরের আগে কোনও মতে বিয়ে নয়। এজন্য প্রতিবেশীদের কাছ থেকে কম কথা শুনতে হয়নি। তবু সব সহ্য করে ওরা ফিরে গিয়েছে নিজেদের স্কুলে। সাহসী এই ভূমিকার জন্য বৃহস্পতিবার, আন্তর্জাতিক নারী দিবসে, রফিজা পাইক, মনুয়ারা সেখ, রূপজান ঘরামি ও অর্পিতা অধিকারীকে সংবর্ধনা দিল মথুরাপুরের কৃষ্ণচন্দ্রপুর হাইস্কুল। এই চারজন ছাত্রী নবম, দশম, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়া। এদিন স্কুলের অডিটোরিয়ামেই এই চারজনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।  উপস্থিত ছিলেন মথুরাপুরের ওসি শিবেন্দু ঘোষ, স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষিকা মায়া মণ্ডল, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রধান সঙ্গীতা গায়েন এবং চাইল্ড লাইনের প্রতিনিধি। ওই চার ছাত্রীকে উপহার হিসেবে দেওয়া হয় মানপত্র, উত্তরীয়, বই, ফুলের স্তবক ও মিষ্টি।  

স্কুলে সংবর্ধিত ৪ ছাত্রী।ছবি:‌ প্রতিবেদক‌

জনপ্রিয়

Back To Top