আজকালের প্রতিবেদন: ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের কথা ভেবে বিজেপি প্রতিহিংসার রাজনীতি শুরু করে দিল।
নারদা–কাণ্ডে ইমেলে ইডি–র চিঠি পেয়ে মঙ্গলবার এই প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন কলকাতা পুরসভার প্রধান প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। অনেককেই চিঠি দেওয়া হয়েছে। রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি বলেন, ‘‌আমি কোনও মেল পাইনি। এর আগে ইডিকে বহুবার কাগজপত্র জমা দিয়ে এসেছি। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে জেতার জন্য ফের ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। ২০১৬–র বিধানসভা ভোটের আগেও নানা ধরনের অপপ্রচার হয়। কুৎসা করা হয়। মমতা ব্যানার্জিকে হেনস্থার চেষ্টা করা হয়। সময় মতো নির্বাচন হলে বাংলায় বিজেপি কিছু করতে পারবে না। যদি মেল পাই, আবার কাগজপত্র দিয়ে দেব। এখানে লুকোনোর তো কিছু নেই। জনপ্রতিনিধি হয়ে যতটুকু করার, ততটুকু করব।’‌
সাংসদ সৌগত রায় এদিন ইডির চিঠির কোনও গুরুত্ব না দিয়ে বলেছেন, ‘‌আমার কাছে প্রতিদিন ৫০টি মেল আসে। এর আগেও তো আমি ইডিকে উত্তর দিয়ে এসেছি। মেল পেলে তখন দেখব। বিজেপি বরাবরই প্রতিহিংসার রাজনীতি করে। আগামী বছর বিধানসভা নির্বাচনের আগে এখনও কিছুটা সময় আছে। এর মধ্যে তৃণমূলের পিছনে লেগে গিয়েছে বিজেপি। কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেলের দিল্লির বাড়িতে ইডির লোক পাঠানো হল। যত আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা হবে, মমতার প্রতি মানুষের আস্থা আরও বাড়বে।’‌ সাংসদ প্রসূন ব্যানার্জি বলেন, ‘‌এর আগে ইডির অফিসে গিয়ে ৮ ঘণ্টা কথা বলে এসেছি। ইডির কর্তাব্যক্তিরা আমার সঙ্গে কথা বলে সন্তুষ্ট হয়েছিলেন। সব কাগজপত্র দিয়ে এসেছিলাম। এবার মেল পাইনি। পেলে জবাব দেব। আসলে বিজেপি তৃণমূলকে খারাপ জায়গায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। কোভিড, আমফান নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে বাংলায় খুব ভাল কাজ হচ্ছে। এটা বিজেপির সহ্য হচ্ছে না। যতই ইমেল আসুক, ২০২১–র নির্বাচনে ২০০–র বেশি আসন পাব। তৃণমূলকে কেউ জব্দ বা হেয় করতে পারবে না। বিজেপি–র স্বপ্ন পূরণ হবে না।’‌ সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদার বলেন, ‘‌আমি তো ইমেল পাইনি। আবার কি শুরু হল?‌ আমি তো যা বলার বলে এসেছি। এসব রটাচ্ছে কারা?‌ আমার মনে হয় বিজেপি নেতাদের কাজ। আমরা মমতাদির নেতৃত্বে কাজ করি। তাঁর ওপর আমাদের বিশ্বাস এবং ভরসা আছে। ষড়যন্ত্র করে কেউ কিছু করতে পারবে না।’‌ সাংসদ অপরূপা পোদ্দার বলেন, ‘‌আদালতে মামলা চলছে। আমরা আইনি লড়াই করে নেব। যদিও মেল এখনও পাইনি, পেলে আবার জবাব দেব। দিদির নেতৃত্বে আমাদের লড়াই চলবে। দেশের আইনের প্রতি আমাদের বিশ্বাস আছে। মানুষকে এত বোকা বানানো যাবে না। ঠিক সময়ে বিজেপিকে যোগ্য জবাব দেবে।’‌ কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চ্যাটার্জিকে ইডির পক্ষ থেকে কোনও নোটিস দেওয়া হয়নি। 

জনপ্রিয়

Back To Top