আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মুর্শিদাবাদের দুই কেন্দ্র সামশেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুরে উপনির্বাচনের দিন ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন। এই দুই কেন্দ্রের সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থীদের করোনায় মৃত্যু হওয়ায় নির্বাচন পিছিয়ে দিতে হয়। সোমবার কমিশনের তরফে দুটি পৃথক বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, আগামী ১৩ মে ওই দুই কেন্দ্রে নির্বাচন। ভোটগণনা আগামী ১৮ মে। এদিকে ভোটের দিন ঘোষণা হতেই স্থানীয়দের একাংশ কমিশনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। কমিশনের সিদ্ধান্তে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও। কারণ, ঘটনাচক্রে ১৩ মে ইদ হওয়ার সম্ভাবনা। ক্যালেন্ডারে ১৪ মে ইদের দিন ধরা হলেও তা হতে পারে ১৩ মে। সেকারণে ওদিন ভোট দিতে যেতে নারাজ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বহু মানুষ। ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভোট বয়কটের হুমকিও দিয়েছেন কেউ কেউ।
২৬ এপ্রিল অর্থাৎ সপ্তম দফায় সামশেরগঞ্জ আসনে নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গত ১৫ এপ্রিল ওই কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী রেজাউল হক করোনায় প্রয়াত হন। কংগ্রেস প্রার্থীর মৃত্যুতে নিয়ম মেনে বাতিল করতে হয় সামশেরগঞ্জ কেন্দ্রের নির্বাচন। অন্যদিকে, জঙ্গিপুর কেন্দ্রেও ২৬ এপ্রিলই ভোট হওয়ার কথা ছিল। এই কেন্দ্রেও থাবা বসায় করোনা। ১৬ এপ্রিল মৃত্যু হয় এই কেন্দ্রের সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী তথা আরএসপির লোকাল কমিটির সম্পাদক প্রদীপ কুমার নন্দীর। যথারীতি ওই কেন্দ্রেও ভোট পিছিয়ে দিতে হয়।
সোমবার ওই দুই কেন্দ্রেই ভোটের দিন ঘোষণা করেছে কমিশন। বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়েছে, ওই দুই কেন্দ্রে ভোট হবে ইদের দিন অর্থাৎ আগামী ১৩ মে। মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষদিন আগামী ২৬ এপ্রিল। মনোনয়ন প্রত্যাহার করা যাবে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত। দুই কেন্দ্রেই ফলাফল ঘোষণা করা হবে ১৮ মে। ১৩ মে ইদের দিন ভোট হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। ইতিমধ্যেই উপনির্বাচনের দিন বদলে দেওয়ার দাবিতে সরব হয়েছেন স্থানীয়রা। অসন্তুষ্ট মমতা ব্যানার্জিও। তিনি বলেছেন, ‘নির্বাচন কমিশনের কাছেও নিশ্চয়ই ক্যালেন্ডার আছে। আমি আর কী বলব বলুন। তবে আমরা এ ব্যাপারে চিঠি দেব। এখন নয়। সময় মতো চিঠি দেওয়া হবে কমিশনকে।’‌ আসাদউদ্দিন ওয়াইসির দল মিমের তরফে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য কমিশনকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। যেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, ১৩ মে ইদ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই এলাকায় সংখ্যালঘুর আধিক্য রয়েছে। ফলে ইদের ব্যস্ততায় অনেকেই ভোট দিতে আসতে পারবেন না ওই দিন। তাই নির্বাচনের দিন বদলে নতুন দিনক্ষণ ঘোষণা করা হোক। মনোনয়নের শেষ তারিখও বদলের আর্জি জানানো হয়েছে। তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক তথা সামশেরগঞ্জের তৃণমূল প্রার্থী আমিরুল ইসলামও দিন পরিবর্তনের আর্জি জানিয়ে কমিশনকে চিঠি দিয়েছেন। কমিশনের বিরুদ্ধে ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন মুর্শিদাবাদ সিপিএম জেলা কমিটির সদস্য মহম্মদ আজাদও। 

জনপ্রিয়

Back To Top