BJP: ফ্রি টিউশন-‌এলাকায় স্যানিটাইজেশন, কোভিডকালে জনসেবায় বিজেপির ‘‌বিবেক বাহিনী’‌

মনোজিৎ মালাকার: কোভিডকালে রাস্তায় নেমেছিল রেড ভলেন্টিয়াররা।

তার ডিভিডেন্ড কলকাতা পুরভোটে পেয়েছে বামেরা। এবার সেই আদলেই রাজ্যজুড়ে নেমেছে বিজেপির ‘বিবেক বাহিনী’। স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন ১২ জানুয়ারি থেকে পথ চলা শুরু করেছে তারা। স্থানীয় সমস্যা, কোভিডকালে এলাকা স্যানিটাইজেশনের মধ্যে দিয়ে জনসেবায় দেখা যাচ্ছে এই বাহিনীকে। এরই মধ্যে তাদের উদ্যোগে দক্ষিণ কলকাতায় বেহালা পশ্চিম বিধানসভার ১২৭ নং ওয়ার্ডে ফ্রি কোচিং সেন্টারের আয়োজন করা হয়েছে। ১৮ জানুয়ারি থেকে চালু হল সেই কোচিং ক্লাস। এছাড়াও বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে স্যানিটাইজেশনের উদ্যোগ নিয়েছে তাঁরা।

এই প্রসঙ্গে aajkaal.in-কে দক্ষিণ কলকাতা জেলার বিবেক বাহিনীর সহ-প্রমুখ মানস ভট্টাচার্য জানান, ‘যে কোনও সমস্যায় মানুষের পাশে আছে ‘‌বিবেক বাহিনী’‌। ১২০ নম্বর ওয়ার্ডের প্রতিটি জায়গায় স্যানিটাইজেশন চলছে‌। ১২৭ নম্বর ওয়ার্ডে ফ্রি কোচিং ক্লাস দু’জায়গায় চালু করা হয়েছে‌। এছাড়াও দুঃস্থ মানুষদের বাড়িতে চাল, ডাল খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। ৪ ফেব্রুয়ারি ওই ওয়ার্ডে একটি রক্তদান শিবির হবে।’‌

 

দক্ষিণ কলকাতার বিজেপি সভানেত্রী সংঘমিত্রা চৌধুরী aajkaal.in-কে জানান, ‘দক্ষিণ কলকাতায় করোনার প্রকোপ সবচেয়ে বেশি। সেই কারণেই সুকান্ত মজুমদারের নেতৃত্বে আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি। ধীরে ধীরে রাজ্যজুড়ে এই বিবেক বাহিনী ছড়িয়ে পড়েছে। আগামী দিনে এই ভাবেই মানুষের সঙ্গে জনসংযোগ আমরা করতে চাই। আগামী পাঁচ বছর এইভাবেই জনসংযোগ করব। অনেকেই আমাদের ফোন করছেন। কারও শরীর খারাপ। আমাদের বাহিনী গিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এইভাবেই আমরা যথাসাধ্য সাহায্য করার চেষ্টা করছি।’‌

আর এই বিবেক বাহিনীর বিরুদ্ধে কটাক্ষ করেছে শাসকদল। তৃণমূল মুখপাত্র দেবাংশু ভট্টাচার্য aajkaal.in-কে বলেন, ‘‌যাঁদের বিবেকই নেই তাঁরা আবার বিবেক বাহিনী তৈরি করেছে। করোনার প্রথম, দ্বিতীয় ঢেউ গিয়ে এখন তৃতীয় ঢেউ হয়ে শেষের দিকে চলে এল, এখন মনে পড়েছে মানুষকে সাহায্য করার। আমি মনে করি না মানুষের পাশে থাকলে আলাদা সেল খোলার দরকার আছে। দলের হয়েও মানুষের হয়ে কাজ করা যায়। আমরা তৃণমূল কর্মীরা প্রথম থেকেই মানুষের পাশে রয়েছি।’‌

আরও পড়ুন:‌ স্কুল খোলার দাবিতে হাইকোর্টে মামলা, ফেসবুকে ঝড়!‌ কী ভাবছে রাজ্য?‌

আকর্ষণীয় খবর