আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকারের গাড়ি ঘিরে চলল হামলা। হামলায় তিনি অল্পের জন্য রক্ষা পেলেও ভাঙল গাড়ির কাঁচ। ইদ উপলক্ষ্যে এক সামাজিক অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন তিনি। পথে যাওয়ার সময় পাতালখুড়ি গ্রামের কাছে হঠাৎই তাঁর গাড়িতে হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতী। সেইসময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন কয়েকজন বিজেপি কর্মী এবং তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ২ সিআইএসএফ জওয়ান। গাড়ির পিছন দিক থেকে ছোঁড়া হয় ইট। গাড়ির কাঁচ ভেঙে গেলেও সাংসদের গায়ে কোনও আঘাত লাগেনি। গাড়ি থামিয়ে তৎক্ষণাৎ থানায় ফোন করেন তিনি। এ প্রসঙ্গে বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার বলেন, ‘‌আমার গাড়ি ঘিরে হামলা চালায় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। লক্ষ্য ছিল আমার উপর আঘাত হানা। কিন্তু অল্পের জন্য বেঁচে যাই। ইদের একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলাম কিন্তু হামলার জেরে মাঝপথ থেকেই ফিরে আসতে বাধ্য হচ্ছি। এই হামলার ঘটনা প্রসঙ্গে বাঁকুড়া সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।’‌ যদিও বিজেপি সাংসদের উপর হামলার ঘটনায় তৃণমূলের কেউ জড়িত নয় বলেই জানালেন বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল সভাপতি শ্যামল সাঁতরা। তৃণমূলের কেউ হামলা চালায়নি। এটা বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। সদ্য সমাপ্ত বিধানসভা ভোটের পর থেকে বিজেপির দলীয় কোন্দল বেড়ে গেছে। কারণ সাংসদ সুভাষ সরকাররা মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দেন। কোনও কাজ করেন না। আর তার জেরেই হামলা চালাচ্ছে বিজেপির বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর লোকেরা। আর বদনাম করতে তৃণমূলের নাম জড়াচ্ছেন সুভাষ সরকাররা। দাবি  বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল সভাপতি শ্যামল সাঁতরার। অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ তদন্ত করে খতিয়ে দেখছে গোটা ঘটনা। যদিও এই ঘটনায় কেউ গ্রেপ্তার হননি। 

জনপ্রিয়

Back To Top