আজকাল ওয়েবডেস্ক: শুক্রবার শীতলকুচির ঘটনায় একটি অডিও প্রকাশ করা হয় বিজেপির তরফে। সেই অডিওতে মমতা ব্যানার্জি ও শীতলকুচির তৃণমূল প্রার্থী পার্থপ্রতিম রায়ের কথোপকথন শোনা যায়। আর সেই ফোনালাপ নিয়ে আজ সকালে নির্বাচন কমিশনের দফতরে যান বিজেপির প্রতিনিধি দল। সেখান থেকে ফোন ট্যাপের অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি। কমিশনের সঙ্গে সাক্ষাতের পর ফোন ট্যাপের অভিযোগ উড়িয়ে বিজেপি নেতা স্বপন দাশগুপ্ত বলেন, 'কলার ও রিসিভারের মধ্যেই কেউ ফোন রেকর্ড করেছে। এই কল রেকর্ডিং করে অন্য কৌশল নিয়েছে শাসকদল।'

গতকাল সেই ফোনালাপ প্রকাশ্যে আনে বিজেপি। যেখানে মমতাকে বলতে শোনা যায় 'ডেডবডি যেন পরিবারের লোক না নেয়। ডেডবডি নিয়ে কাল মিছিল হবে।' তাঁকে আরও বলতে শোনা যায়, 'এসপি আর আইজি-কে ফাঁসাতে হবে। ভোটের পর সবাইকে গ্রেফতার করা হবে।' তারপরেই সাংবাদিক বৈঠক করে কার্যত ঘুরপথে সত্যতা স্বীকার করে নেয় তৃণমূল। তৃণমূলের দাবি, এতে প্রমাণ হয়ে গেল আমাদের ফোন ট্যাপ করা হয়। যদিও প্রথম প্রতিক্রিয়ায় টেপটিকে ভুয়ো বলে দাবি করেছিল তৃণমূল। অন্যদিকে, যদিও তৃণমূল নেতা ডেরেক ও’ব্রায়েন বিজেপি নেতা অমিত মালব্যকে আক্রমণ করে বলেন, ‘উত্তর প্রদেশের মিথ্যের ফ্যাক্টরির মালিক। ভুয়ো খবর ছড়ানোয় উনি বিখ্যাত।’ 

তৃণমূল নেতা সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, ‘আমরা এত লোকসভা–রাজ্যসভায় দাবি করতাম ফোনে আড়ি পাতা হয়। এবার তা প্রমাণিত হল।’ তিনি আরও দাবি করেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী তাঁর দলের প্রার্থীর সঙ্গে কী কথা বলছেন তা ট্যাপ হল। ট্যাপ তো যে কেউ করতে পারে না।’যদিও এরপর আজ কমিশনে গিয়ে এই অডিও নিয়ে নালিশ জানানোর পরে কোন টাইপের অভিযোগ কার্যত অস্বীকার করল গেরুয়া শিবির।

জনপ্রিয়

Back To Top