সঞ্জয় বিশ্বাস, দার্জিলিং: দার্জিলিং বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে মোর্চার প্রার্থী হচ্ছেন বিনয় তামাং। গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে এদিন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে। মোর্চা নেতাদের দাবি, নিছক বিধায়ক করার জন্য বিনয় তামাংকে প্রার্থী করা হচ্ছে না। তাঁদের আশা, জিতলে বিনয়কে মন্ত্রিসভাতেও আনা হবে। দপ্তরও নির্দিষ্ট করে নিয়েছে মোর্চা। জয়ী হলে পার্বত্য বিষয়ক দপ্তর তাঁকে দেওয়া হতে পারে, এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন মোর্চা নেতা সিরিং দাহাল। আশির দশকে পাহাড় থেকে দাওয়া লামা মন্ত্রী থাকলেও পরবর্তী দীর্ঘ সময়ে পাহাড় থেকে কাউকে মন্ত্রী করা হয়নি। আর এটাকেই তুরুপের তাস করে মোর্চা উপনির্বাচনে ঝাঁপাচ্ছে বলে এদিন স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে।
দার্জিলিঙের মোর্চা বিধায়ক অমর সিং রাই বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে তৃণমূলের হয়ে লোকসভায় প্রার্থী হয়েছেন। শূন্য আসনে ১৯ মে উপনির্বাচন হতে চলেছে। লোকসভায় তৃণমূলের প্রার্থী থাকলেও মোর্চা জোটসঙ্গীর মতোই কাজ করেছে। বিধানসভায় তৃণমূল যে প্রার্থী দেবে না, তা আগেই স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। ফলে এবার তৃণমূলের সমর্থনে মোর্চার প্রার্থী দাঁড়াচ্ছেন, তা পরিষ্কার। 
লোকসভায় পাহাড়ে মূল ইস্যু ছিল উন্নয়ন ও শান্তি। বিধানসভা উপনির্বাচনেও ইস্যু উন্নয়ন থাকলেও প্রচার জুড়ে যে মন্ত্রিত্বের বিষয়টি থাকবে, সেটা আগাম আঁচ করা যাচ্ছে। মোর্চার কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা সিরিং দাহাল বৈঠক শেষে জানান, ‘মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে গতকাল বিনয় তামাংয়ের ১০ মিনিট মুখোমুখি কথা হয়েছে। তৃণমূল সব রকমভাবে আমাদের পাশে থাকবে। আমরা যদি বিধায়ক করে পাঠাতে পারি, তবে পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রীর পদ প্রায় পাকা। পাহাড়বাসীর কাছে এটা বিশাল বড় উপহার হবে।’‌ 
মন্ত্রী হতে পারেন, সেটা বিনয় তামাংও আকারে ইঙ্গিতে জানিয়ে দিয়েছেন। এতে পাহাড় ও সমতলের মধ্যে বন্ধন আরও দৃঢ় হবে বলেই মনে করা হচ্ছে। এদিনের ঘোষণার পর পাহাড়ের বিধানসভা উপনির্বাচনের পরিবেশও বেশ জমে উঠতে শুরু করল। বৈঠকে অমর সিং রাই, অনীত থাপা, সতীশ পোখরেল–‌সহ সকলেই ছিলেন। যদিও এখনও পর্যন্ত বিরোধী শিবির প্রার্থী নিয়ে সেভাবে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। মোর্চার তরফে জানানো হয়েছে, ২৬ তারিখেই বিনয় তামাং মনোনয়ন জমা দেবেন। 

জনপ্রিয়

Back To Top