সোহম সেনগুপ্ত: দিনরাত এক করে নিজের ওয়ার্ডে ভাষা দিবসের স্থায়ী তোরণ তৈরির কাজ তদারকি করছিলেন বারাসত পুরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তথা পুরপ্রধান পারিষদ (শিক্ষা) প্রদ্যুৎ ভট্টাচার্য। সম্প্রতি হুগলির চণ্ডীতলায় বাঁকুড়া থেকে বারাসতে ফেরার পথে দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় মারা যান ভাই প্রণবও। এরপর বারাসত ন’‌পাড়া সংলগ্ন ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় তৈরি হওয়া ভাষা দিবসের তোরণের কাজও থমকে যায়। যদিও দিনদুয়েক আগে থেকেই ভাইস চেয়ারম্যান অশনি মুখার্জি ও চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল অরুণ ভৌমিকের উদ্যোগে ফের তোরণ তৈরির কাজ শুরু হয়। শুক্রবার আন্তর্জাতিক ভাষা দিবসে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হয় তোরণটির। হাজির ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান অশনি মুখার্জি, চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল অরুণ ভৌমিক, ভাষাবিদ গৌর মিত্র–‌সহ বিশিষ্টজনেরা। অশনি মুখার্জি জানান, ভাষা দিবসের এই স্থায়ী তোরণ বারাসতবাসীকে উপহার দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিলেন তাঁর সহকর্মী প্রদ্যুৎ ভট্টাচার্যই। কিন্তু তাঁর মৃত্যুতে সবকিছু থমকে যায়। তা সত্ত্বেও এলাকার মানুষ ও পুরসভার চেষ্টায় এই স্থায়ী তোরণ ভাষা দিবসেই উদ্বোধন করা হল। এদিন এই উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভাষা শহিদদের স্মরণ করার পাশাপাশি সকলেই স্মরণ করেন প্রদ্যুৎকেও।
এদিকে, প্রদ্যুৎ ভট্টাচার্য ও তাঁর ভাই প্রণবকে খুন করা হয়েছে বলে শুক্রবার হুগলির চণ্ডীতলা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন প্রদ্যুতের স্ত্রী মৌমিতা ভট্টাচার্য। এদিন থানায় ছিলেন উপ–‌পুরপ্রধান অশনি মুখার্জিও। অভিযোগে মৌমিতা জানান তাঁর স্বামী ও দেওরের মৃত্যুর পেছনে গভীর ষড়যন্ত্র রয়েছে বলেই তাঁর ধারণা। এটা নিছক দুর্ঘটনা নয়, তাঁদেরকে খুন করা হয়েছে বলেই দাবি মৌমিতাদেবীর।

প্রদ্যুতের শুরু করা ভাষা তোরণে পালিত হল ভাষাদিবস। বারাসত ন পাড়ায়, শুক্রবার। ছবি: ভবতোষ চক্রবর্তী 

জনপ্রিয়

Back To Top