স্নেহাশিস সৈয়দ, বহরমপুর, ৫ মার্চ- মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘির বালিয়া গ্রাম ঘেঁষে বয়ে চলেছে ভাগীরথী। সেখানে নদীবক্ষে জেগে উঠেছে বিশাল  চর। এই চর ঘিরেই মানুষের মধ্যে দেখা দিয়েছে ব্যাপক চাঞ্চল্য। নদী পারাপারে ব্যবহৃত নৌকা চলাচলে বাধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে বারবার। সাগরদিঘি থানার বিভিন্ন গ্রামের সঙ্গে লালগোলা থানা এলাকার বিস্তীর্ণ অঞ্চলের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম নৌকা। এখন  নদীতে চর জেগে ওঠা বালিয়া–শ্যামপুর ফেরি ঘাটে নৌকা চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। 
ফেরি ঘাটের মাঝি সোমনাথ দাস জানান, ‘‌প্রায় ১৫ দিন ধরে নদীর বুকে এই চরটি জেগে উঠেছে।  ফলে আমাদেরকে নৌকা অনেক দূর দিয়ে নিয়ে যেতে হচ্ছে। এর ফলে যাত্রী নিয়ে যেতে পাঁচ- সাত মিনিটের জায়গায় প্রায় ২০ মিনিট লেগে যাচ্ছে। এতে আমাদেরও অসুবিধা হচ্ছে। সমস্যায় পড়েছেন যাত্রীরাও।’‌ নৌকার যাত্রী আমিরুল সেখ জানান, ‘‌এই ঘাট দিয়ে প্রতিদিন বহু ছাত্র-ছাত্রী এবং বিভিন্ন পেশার মানুষরা যাতায়াত করেন। কিন্তু এখন তাঁরা  সময় মতো কাজের জায়গায় পৌঁছতে পারছেন না। মাঝিদের অনেকটা ঘুরে যেতে হচ্ছে।’‌  গত বছর বহরমপুর লাগোয়া গোয়ালজান এলাকায় ভাগীরথীর জল কমে গিয়ে বিশাল বালির চর জেগে ওঠে একই ভাবে। তা দেখতে হাজার হাজার মানুষ ভিড় জমান। বন্ধ হয়ে যায় ফেরি চলাচল। বাসিন্দাদের আশঙ্কা, ভাগীরথীতে যদি দ্রুত ড্রেজিং করা না হয়, তবে ভবিষ্যতে নদী দিয়ে নৌকা, স্টিমার বা লঞ্চ কোনও কিছুই চলাচল করতে পারবে না। 

চর পড়ে যাওয়ায় পারাপার বন্ধ। ছবি:‌ চয়ন মজুমদার
 

জনপ্রিয়

Back To Top