সোহম সেনগুপ্ত, মিল্টন সেন, বারাসত ও হুগলি, ১৭ ফেব্রুয়ারি- পথদুর্ঘটনায় নিহত বারাসত পুরসভার চেয়ারম্যান ইন ‌কাউন্সিল (শিক্ষা) প্রদ্যুৎ ভট্টাচার্য ও তাঁর ভাই প্রণব ভট্টাচার্যকে চোখের জলে শেষ বিদায় জানালেন বারাসতের অগণিত মানুষ। সোমবার শ্রীরামপুর ওয়ালশ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের পর দু‌জনের দেহ বারাসতে নিয়ে আসেন মধ্যমগ্রামের বিধায়ক রথীন ঘোষ, বারাসত পুরসভার পুরপ্রধান সুনীল মুখার্জি, উপ–‌পুরপ্রধান অশনি মুখার্জি–সহ তৃণমূল নেতারা। প্রথমে বারাসত পুরসভা ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড অফিস এবং পরে প্রদ্যুৎবাবু ও তাঁর ভাইয়ের মরদেহ নিয়ে আসা হয় বারাসত কেএনসি রোড সংলগ্ন বাড়িতে। সেখানে তাঁদের শ্রদ্ধা জানান খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, সাংসদ ডাঃ কাকলি ঘোষ দস্তিদার, বিধায়ক চিরঞ্জিত চক্রবর্তী, জেলা পরিষদের দলনেতা নারায়ণ গোস্বামী, জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ এ কে এম ফারহাদ প্রমুখ। প্রয়াত নেতাকে শ্রদ্ধা জানান ফরওয়ার্ড ব্লকের জেলা সম্পাদক সঞ্জীব চ্যাটার্জি–সহ বাম ও কংগ্রেসের প্রতিনিধিরাও। এদিন খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌প্রদ্যুৎ ও তাঁর ভাইয়ের মৃত্যুতে আগামী ৭ দিন বারাসতে সমস্ত দলীয় কর্মসূচি বন্ধ থাকবে। একইসঙ্গে ৩ দিন শোক পালন হবে।’‌
রাতে দুই ভাইয়ের দেহ নিয়ে দলীয় কর্মী ও পরিবারের লোকেরা রওনা হন বাঁকুড়ায় তাঁদের পৈতৃক বাড়ির উদ্দেশে। সেখানেই শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে তাঁদের। এদিন হুগলির চণ্ডীতলা শিয়াখালায় দুর্ঘটনাস্থলে তদন্তে আসেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ চিত্রাক্ষ সরকার। তিনি দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়ি দুটিকেই পরীক্ষা করে দেখেন। ছিলেন হুগলি গ্রামীণ পুলিশকর্তারা।

প্রদ্যুৎ ভট্টাচার্যকে শেষ শ্রদ্ধা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ও ডাঃ কাকলি ঘোষ দস্তিদারের। সোমবার। বারাসতে। ছবি:‌ ভবতোষ চক্রবর্তী‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top