স্বদেশ ভট্টাচার্য,হাসনাবাদ: খুলে গেল হাসনাবাদের বনবিবি সেতু। উদ্বোধন করতে এসে জনজোয়ারে ভাসলেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। সুন্দরবনের প্রবেশদ্বারে হাসনাবাদের কাটাখালি নদীর উদ্বোধনে এসে ফলক উন্মোচন করে জ্যোতিপ্রিয় বলেন, ‘‌মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের সেতু হাসনাবাদের এই ‘‌বনবিবি সেতু’‌। সুন্দরবনের মানুষের জন্য এই সেতু উৎসর্গ করা হল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সেতু উদ্বোধন করার কথা থাকলেও, সর্বভারতীয় রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে মুখ্যমন্ত্রী ব্যস্ত থাকায় আমাকে আসতে হয়েছে।’‌ তিনি বলেন, ‘‌বাম আমলে জ্যোতি বসু, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যরা যা পারেননি, মমতা ব্যানার্জি তা করে দেখিয়েছেন। এই সেতু সুন্দরবনের অর্থনীতিকে বদলে দেবে।’‌ তিনি বলেন, ‘‌সেতু হওয়ার ফলে হাসনাবাদের নদী পারাপারে যুক্ত মাঝি–মাল্লারা কাজ হারাবেন। তাঁদের বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। এজন্য এই এলাকায় যে সব কর্মতীর্থ তৈরি হচ্ছে সেখানে মাঝি–মাল্লাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।’‌
এদিন অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলাশাসক অন্তরা আচার্য, বসিরহাটের সাংসদ ইদ্রিশ আলি, জেলা পরিষদের সভাধিপতি বীণা মণ্ডল, বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস, সুকুমার মাহাতো, দেবেশ মণ্ডল, জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ ফিরোজ কামাল গাজি, নারায়ণ গোস্বামী–সহ পূর্ত দপ্তরের পদস্থ আধিকারিকরা। হাসনাবাদ বিডিও অফিসের সংলগ্ন মাঠে সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে সভার আয়োজন করা হয়। সংক্ষিপ্ত সভার পরই খাদ্যমন্ত্রী হেঁটে সেতুর ফলক উন্মোচন করেন। ফিতে কাটেন। উদ্বোধনের পরই সেতু খুলে দেওয়া হয় সর্বসাধারণের জন্য। পেছনে হাজার হাজার মানুষকে নিয়ে জ্যোতিপ্রিয়, ইদ্রিশ–সহ অন্যরা ৯৭১ মিটার দীর্ঘ সেতুর ওপর দিয়ে হাঁটেন। পার হাসনাবাদ প্রান্তে খাদ্যমন্ত্রী পৌঁছলে মহিলারা শঙ্খ, উলুধ্বনি দিতে থাকেন।
২০০৬ সালে তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য শিলান্যাস করেন। কাজও শুরু হয়। তিন বছরে কাজ শেষ করার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু নদীর মাঝখানে মূল দুটি স্তম্ভের কাজ শেষ হতে লেগে গেছে ৬ বছর। ২০১২ সালের শেষের দিকে বড় ধরনের গলদ ধরা পড়ে সেতুর স্তম্ভে। ২০০৬ সালে বরাদ্দ ২৫ কোটি টাকায় ২০১২ সালে সেতুর কাজ সম্পন্ন করা কোনও মতে সম্ভব ছিল না। মমতা ব্যানার্জি সরকার সেতুর জন্য বরাদ্দ বাড়িয়ে প্রায় ৯০ কোটি টাকা করে। জিপিটি নামে নির্মাণ সংস্থা বরাত পায়। খরচ হয়েছে ৮৯ কোটি ৫৭ লক্ষ। 

উদ্বোধনের পর সেতুর ওপর দিয়ে হাঁটছেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, দীপেন্দু বিশ্বাস–‌সহ অন্যরা। বৃহস্পতিবার। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top