নিরুপম সাহা, অশোকনগর: বাংলাদেশ থেকে ভারতে চিকিৎসা করাতে এসে বিপাকে পড়লেন এক বাংলাদেশি পরিবারের সদস্যরা। অভিযোগ, বাড়িওয়ালার কু–প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তঁাদের পাসপার্ট আটকে হেনস্থা করা হচ্ছে। আতঙ্কিত ওই বাংলাদেশি পরিবার পুলিশের পাশাপাশি বাংলাদেশ উপ–দূতাবাসের কাছেও তঁাদের অসহায় পরিস্থিতির কথা জানিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে অশোকনগর থানা এলাকায়। 
জানা গেছে, বাংলাদেশের খুলনা জেলার বাসিন্দা শিবানন্দ বাছার চিকিৎসা করাতে বাবা, মা, স্ত্রী, সন্তানকে নিয়ে ৩ মাসের ভিসায় ভারতে এসেছেন। আত্মীয়তার সূত্রে অশোকনগর থানার গুমা এলাকায় সমীর বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে দেড় হাজার টাকা ভাড়ায় পরিবার নিয়ে থাকতে শুরু করেন। সেই বাড়ি থেকে চিকিৎসা চলছিল। চিকিৎসার কারণে সঙ্গে আনা টাকার প্রায় বেশির ভাগটাই খরচ হয়ে যাওয়ায় টাকা আনতে শিবানন্দ একাই বাংলাদেশে যান। পরিবারের বাকিরা ওই ভাড়া বাড়িতে থাকেন। শিবানন্দের স্ত্রী পল্লবী বাছারের অভিযোগ, ‘‌‌স্বামী কাছে না থাকার সুযোগে বাড়িওয়ালা তঁাকে কু–প্রস্তাব দেয়। রাজি না হওয়ায় বাড়িওয়ালা ব্যাগ থেকে জোর করে আমাদের পাসপোর্ট, সোনার চেন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। শুধু তাই নয়, ওই ব্যক্তি তঁাদের কাছে দেড় লক্ষ টাকা পায়, ভয় দেখিয়ে একটি কাগজে সই করিয়ে নেয়।’ বিষয়টি তিনি ফোন করে স্বামীকে জানান। তিনি ফিরে এলাকার বাসিন্দাদের জানানোর পর স্থানীয়দের সহযোগিতায় অশোকনগর থানার দ্বারস্থ হন। পাশাপাশি তঁারা কলকাতায় বাংলাদেশের উপ–দূতাবাস দপ্তরে যোগাযোগ করেন। সেখান থেকে তঁাদের আশ্বস্ত করা হয়েছে। আতঙ্কিত ওই পরিবার আগের বাড়ি ছেড়ে এখন অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে।

জনপ্রিয়

Back To Top