আজকালের প্রতিবেদন: ২০১৪ সালে উত্তর ২৪ পরগনার বামুনগাছির সৌরভ চৌধুরির হত্যাকাণ্ডে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হল। কলকাতা হাইকোর্টের রায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দু’‌জনকে বেকসুর খালাস করে দেওয়া হল। প্রধান অভিযুক্ত সাজাপ্রাপ্ত শ্যামল কর্মকারের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের মেয়াদ ১৫ বছরের জায়গায় ৩০ বছর করা হয়েছে। বিচারপতি নাদিরা পাথারিয়া ও বিচারপতি দেবীপ্রসাদ দে–র ডিভিশন বেঞ্চ শুক্রবার এই রায় দিয়েছে। ২০১৪ সালের ৫ জুলাই সমাজসেবী সৌরভ চৌধুরি দুষ্কৃতীর আক্রমণে বামনগাছি রেলস্টশনে নিহত হন।

বামুনগাছির বাসিন্দা কলেজছাত্র সৌরভ এলাকায় মদ, গাঁজা ও সাট্টার ঠেক বসানোর প্রতিবাদ করেছিলেন। বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে একটি মদের ঠেকও ভেঙেছিলেন তিনি। এই ঘটনার পর থেকেই তাঁর ওপর দুষ্কৃতীরা হামলার ছক কষে। ওইদিন রাতে বাড়ির সামনে থেকে নিখোঁজ হয়ে যান তিনি। পরের দিন বামনগাছি স্টেশনে তাঁর দেহ উদ্ধার হয়। তাঁকে টুকরো টুকরো করে স্টেশন–চত্বরে ছড়িয়ে দিয়েছিল দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনার জেরে, পুলিস মোট ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল। তাঁদের মধ্যে একজন রাজসাক্ষী হয়ে যায়। বাকি ১২ জনের মধ্যে ৮ জনের মৃত্যুদণ্ড হয়। ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২ জনের ৫ বছরের কারাদণ্ড হয়। 

জনপ্রিয়

Back To Top