‌আজকালের প্রতিবেদন: জেল থেকে পরীক্ষা দিয়ে কলেজে অধ্যাপনার জন্য যোগ্যতামান–‌নির্ণায়ক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেন মাওবাদী সন্দেহে বিচারাধীন বন্দি অর্ণব দাম। অর্ণব স্টেট এলিজিবিলিটি টেস্ট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। এই প্রথম কোনও বিচারাধীন বন্দি জেলে বসে এই স্তরের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেন। অর্ণব এখন হুগলি জেলে বন্দি। প্রেসিডেন্সি জেলে থাকাকালীন সেট–‌এ বসেছিলেন। নেট পরীক্ষাতেও বসতে চেয়েছিলেন, কিন্তু পারেননি। অর্ণব পরিবেশ নিয়ে এবার গবেষণা করতে চান। জেল থেকেই তঁার ফলাফলের খবর জানিয়ে বাড়িতে স্পিড পোস্টে চিঠি পাঠিয়েছেন অর্ণব। অর্ণবের বাবা এস কে দাম ছেলের এই সাফল্যে খুশি। বললেন, ‘‌একেবারেই দৃঢ়তার প্রতিফলন। ওর নিষ্ঠাই সাফল্যের মূলে। ওর মা যথেষ্ট উৎসাহ দিয়েছেন ওকে।’‌ অর্ণবের বাবা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে ২০০৩ সালে অবসর নিয়েছেন। মা কল্যাণী সরকার দাম কৃষ্ণনগরের একটি স্কুলে পড়াতেন। স্বেচ্ছাবসর নিয়েছেন। ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘‌সমস্ত কৃতিত্বই ওর। খড়্গপুর আইআইটি–‌তে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ত। ৩টি সেমেস্টার দিয়েছিল। এবার পরিবেশ নিয়ে গবেষণা করতে চায়। আমরা তো সেভাবে কিছু করতে পারছি না, তা ছাড়া সুযোগও তো খুব কম!‌ সুযোগ পেলে ও নিশ্চয়ই করে দেখিয়ে দেবে।’‌ অর্ণবের ফলাফলের পর এপিডিআর–‌এর তরফে রঞ্জিত শূর জানিয়েছেন, ‘‌অর্ণবের এই সাফল্যে তঁাকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। রাজ্য সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি, অর্ণব–‌সহ সমস্ত রাজনৈতিক বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হোক। অর্ণব যাতে পছন্দের বিষয়ে গবেষণা করতে পারে, তার ব্যবস্থা করুক।’‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top