Adhir Attacked TMC: ‘ডায়মন্ড হারবার মডেল’ নিয়ে মমতা-অভিষেক দ্বন্দ্ব শুরু হয়ে গিয়েছে, কটাক্ষ অধীরের 

আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‘ডায়মন্ডহারবার মডেল’ নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক ব্যানার্জির সঙ্গে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তাঁর পিসি মমতা ব্যানার্জির বিরোধ শুরু গিয়েছে, শুক্রবার বহরমপুরে এক সাংবাদিক বৈঠকে বিস্ফোরক দাবি করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি তথা বহরমপুরের কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী।

 

তিনি বলেন, ‘গতকাল থেকে একাধিক তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতা ‘ডায়মন্ডহারবার মডেল’কে কেন্দ্র করে ভাইপোর সমালোচনা করা শুরু করেছে। কিন্তু আমার প্রশ্ন যে সমস্ত তৃণমূল নেতারা এই সমালোচনা করছেন তাঁরা কি মমতা ব্যানার্জির অনুমোদন ছাড়া এই কাজ করছেন? মমতা ব্যানার্জির অনুমোদন না থাকলে তৃণমূলের কোনও সাংসদ বা নেতার রাজ্য সরকার এবং দিদির ভাইপোর সমালোচনা করার ক্ষমতা আছে কি?’

 

সম্প্রতি ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জি তাঁর সংসদীয় এলাকায় কোভিড গ্রাফ কমানোর জন্য একদিনে প্রায় ৫৩ হাজার কোভিড পরীক্ষার ব্যবস্থা করেন। যা ‘ডায়মন্ড হারবার মডেল’ নাম রাজনীতিকদের মধ্যে পরিচিতি লাভ করেছে। অধীরবাবুর দাবি, ‘আমার ধারণা ভাইপোর বিরুদ্ধে যে সমালোচনা করা হচ্ছে তার পিছনে মমতা ব্যানার্জির প্রচ্ছন্ন মদত রয়েছে।’ অধীরবাবু বলেন, ‘ডায়মন্ড হারবার মডেল নিয়ে এত আলোচনা করা হচ্ছে সেই মডেল কি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অনুমোদন করছেন? অন্য জেলায় কেন এই মডেল বাস্তবায়িত করা হচ্ছে না?’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার শ্রীরামপুরের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় এক সাক্ষাৎকারে দাবি করেছেন তিনি মমতা ব্যানার্জি ছাড়া অন্য কাউকে নেতা বলে মানেন না। এর পাশাপাশি অভিষেক ব্যানার্জির নাম না করে তিনি বলেছেন সর্বক্ষণের রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে কোনও রাজনৈতিক বিষয়ে কারও ব্যক্তিগত মতামত প্রকাশ্যে বলার অধিকার নেই। সম্প্রতি অভিষেক ব্যানার্জি ব্যক্তিগত মত দিয়ে বলেছিলেন, কোভিডের সংক্রমণ কমানোর জন্য আগামী দু’মাস রাজ্যে সমস্ত ধর্মীয় ও রাজনৈতিক কর্মসূচি বন্ধ থাকুক।   

অধীরবাবু বলেন, ‘গোটা বিষয়টি নিয়ে মমতা ব্যানার্জি যেভাবে চুপ রয়েছেন এবং তাঁর দলের সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জির সমালোচনা করে যাচ্ছেন তা দেখে আমার মনে হচ্ছে ভাইপোর সঙ্গে দিদির বিরোধ শুরু হয়েছে।’

আরও পড়ুন:‌ ‘হঠাৎ খুব জোরে ঝাঁকুনি’, কীভাবে ঘটল দুর্ঘটনা? জানালেন খোদ চালক

কল্যাণ ব্যানার্জির প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে অধীরবাবু বলেন, ‘উনি তৃণমূলের বিভীষণ কি রাবণ তা আমি জানি না। তবে উনি তৃণমূলের একজন বড় নেতা এবং সত্যি কথা বলেন। আমার ব্যক্তিগত ধারণা মুখ্যমন্ত্রী প্রচ্ছন্ন মদত ছাড়া তিনি এই মন্তব্য করেননি।’ অধীরবাবুর আরও বক্তব্য, ‘ডায়মন্ডহারবার মডেল’ কি আসলে পিকের মস্তিষ্কপ্রসূত মডেল? এত বড় মডেল এবং তাঁর বিরোধিতা তৃণমূল দলের অভ্যন্তর থেকে আসছে কিন্তু তৃণমূল নেত্রী এখনও কেন চুপ রয়েছেন তা আমি জানতে চাই।’

আকর্ষণীয় খবর