Cabinet Reshuffle: পরিবহনে স্নেহাশিস, সেচে পার্থ, পর্যটনে বাবুল, শিল্প গেল শশীর হাতে

আজকাল ওয়েবডেস্ক: বড়সড় পরিবর্তন করা হল রাজ্য মন্ত্রিসভায়।

গুরত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়ে আসা হল বুধবার শপথ নেওয়া নতুন সদস্যদের। এঁদের মধ্যে বাবুল সুপ্রিয়কে দেওয়া হয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি এবং পর্যটন দপ্তরের দায়িত্ব। পর্যটনের দায়িত্বে ছিলেন ইন্দ্রনীল সেন। পরিবহনের দায়িত্বে এলেন স্নেহাশিস চক্রবর্তী। গুরুত্বপূর্ণ এই দপ্তরটি ছিল ফিরহাদ হাকিমের হাতে। সেচের দায়িত্ব পেলেন পার্থ ভৌমিক। যার দায়িত্ব ছিল সৌমেন মহাপাত্রের হাতে। পঞ্চায়েত এবং গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের নতুন মন্ত্রী হলেন প্রদীপ মজুমদার। সুব্রত মুখার্জির মৃত্যুর পর এই দপ্তরের দায়িত্বে ছিলেন পুলক রায়। স্বাধীন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে মৎস্য দপ্তরের দায়িত্ব পেলেন বিপ্লব রায়চৌধুরী। ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি উদ্যোগ এবং বস্ত্রবয়ন দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী হলেন তাজমুল হোসেন।

আরও পড়ুন: West Bengal Cabinet: মন্ত্রিসভায় দপ্তর রদবদল

অন্যদিকে স্কুলশিক্ষা দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন সত্যজিৎ বর্মণ। এই দপ্তরটি সামাল দিচ্ছিলেন পরেশ অধিকারী। ক্রেতা-সুরক্ষা দপ্তরের দায়িত্বে এলেন বিপ্লব মিত্র। মন্ত্রী সাধন পাণ্ডের মৃত্যুর পর এই দপ্তরটি সামাল দিচ্ছিলেন মানস ভুঁইয়া। বীরবাহা হাঁসদাকে করা হল স্বনির্ভর গোষ্ঠী ও স্বনিযুক্তি দপ্তরের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী। সেইসঙ্গে বন দপ্তরের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব সামাল দেবেন তিনি। 


মন্ত্রিসভায় আরও একটি বড়সড় পরিবর্তন এনেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। পার্থ চ্যাটার্জির গ্রেপ্তারির পর মন্ত্রিসভা থেকে তাঁর অপসারণ ঘটিয়ে এতদিন পার্থর হাতে থাকা শিল্প, বাণিজ্য ও অন্যান্য দপ্তরগুলি নিজের হাতে রেখেছিলেন মমতা। স্বাভাবিকভাবেই কৌতূহল ছিল রাজ্যের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ শিল্প, বাণিজ্য দপ্তরটি তিনি কারও হাতে দেন না নিজের হাতে রাখেন। বুধবার মন্ত্রিসভার নতুন দায়িত্ব ঘোষণার পর দেখা গেছে শিল্প, বাণিজ্য দপ্তরের দায়িত্ব মুখ্যমন্ত্রী দিয়েছেন শশী পাঁজাকে। ফিরহাদের থেকে সরিয়ে আবাসনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অরূপ বিশ্বাসকে। রাজ্যের নতুন পরিষদীয় মন্ত্রী হলেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। কারা দপ্তরের দায়িত্বে এলেন অখিল গিরি। তিনি রাজ্যের মৎস্যমন্ত্রী ছিলেন। কারা দপ্তরের দায়িত্বে ছিলেন উজ্জ্বল বিশ্বাস। তাঁকে  বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি ও বায়ো টেকনোলজি দপ্তরের মন্ত্রী করা হয়েছে। পূর্ত দপ্তরের দায়িত্ব পেলেন পুলক রায়। মন্ত্রী রত্না দে নাগকে সরিয়ে পরিবেশ দপ্তর দেওয়া হয়েছে মানস ভুঁইয়াকে। আগের মন্ত্রিসভার যে সদস্যদের  বাদ দেওয়া হয়েছে তাঁরা হলেন হুমায়ূন কবীর, রত্না দে নাগ, পরেশ অধিকারী এবং সৌমেন মহাপাত্র।

আকর্ষণীয় খবর