ABSU: শেষ দিনে নতুন ঘোষণা, আগামী বছর থেকে ভারতের বিভিন্ন শহরে অনুষ্ঠিত হবে এপিজে বাংলা সাহিত্য উৎসব

আজকাল ওয়েবডেস্ক: শীতের শুরুতে শহরে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল তিনদিনব্যাপী সাহিত্য উৎসব।

এই প্রথম নয়, ২০১৫তে সূচনা, তারপর থেকে এক দুই করে অষ্টম বর্ষ পার করল এপিজে বাংলা সাহিত্য উৎসব। ২৫ নভেম্বর এই উৎসবের সূচনা হয় অক্সফোর্ড বুকস্টোরে। স্বাভাবিক ভাবেই করোনাকাল পেরিয়ে এবার ফের পুরনো ছন্দে, বলা ভালো আরও ব্যাপক হারে ফিরে এসেছে এই সাহিত্য উৎসব। অনুষ্ঠানের সূচনা করেন ভাষাতত্ত্ববিদ, সাহিত্য সমালোচক, শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার। অক্সফোর্ড বুকস্টোরের সিইও, এবিএসইউ-র ডিরেক্টর স্বাগত সেনগুপ্ত জানান, অক্সফোর্ড বুকস্টোরের শতবর্ষ উদযাপনের সূচনা এই সাহিত্য উৎসবের মধ্য দিয়েই, সেকথা মাথায় রেখেই এবারও অনুষ্ঠানের স্থান অক্সফোর্ড বুকস্টোরই রাখা হয়েছে। উৎসবের সূচনার দিনেই ঘোষণা করা হয়েছে আরও একটি বড় বিষয়, অক্সফোর্ড বুকস্টোরে চালু করা হবে লিটল ম্যাগাজিন কর্ণার। 

তিনদিন ধরে একগুচ্ছ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল এবিএসইউ। উৎসবে উপস্থিত ছিলেন পবিত্র সরকার, হিমাদ্রি কিশোর দাশগুপ্ত, আবুল বাশার, তিলোত্তমা মজুমদার, বিনোদ ঘোষাল, রাহুল অরুণাদয় ব্যানার্জি, মন্দাক্রান্তা সেন, উল্লাস মল্লিক সহ বহু বিশিষ্টজনেরা। তিনদিন ধরে বাঙালিয়ানা এবং বাংলা সাহিত্যের একাধিক বিষয় নিয়ে আলোচনা চক্র বসেছে অক্সফোর্ড বুকস্টোরে। বিশিষ্ট জনেরা তাঁদের ভাবনা চিন্তা এবং উপলব্ধি প্রকাশ করেছেন। 

অনুষ্ঠানের অষ্টম বর্ষে লক্ষণীয়, এই উৎসবের জনপ্রিয়তা এই মুহূর্তে তুঙ্গে। সেকথা মাথায় রেখেই রবিবার, অনুষ্ঠানের শেষদিনে ঘোষণা করা হয়, আগামী বছর থেকে কলকাতা সহ ভারতের বহু শহরে অনুষ্ঠিত হবে এই উৎসব। দেশের সর্বপ্রথম ভ্রাম্যমাণ বাংলা সাহিত্য উৎসব হিসেবে এবিএসইউ আত্মপ্রকাশ করবে আগামী বছর থেকে। যদিও ভৌগলিক বেড়াজাল পেরিয়ে যাতে এই অনুষ্ঠানের অংশ হতে পারেন দেশ বিদেশের বহু মানুষ, সেই কারণে গোটা বিশ্বের সহিত্যপ্রেমী মানুষদের জন্য এপিজে বাংলা সাহিত্য উৎসবের ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউব থেকে সমস্ত অনুষ্ঠানের লাইভ স্ট্রিমিং করা হয়েছে এবছর।

আকর্ষণীয় খবর