Wriddhi-Sourav: সৌরভের মন্তব্য প্রকাশ্যে আনা উচিত হয়নি ঋদ্ধির, মত স্নেহাশিসের

আজকাল ওয়েবডেস্ক: ২৪ ঘণ্টা আগেই বোমা ফাটিয়েছেন ঋদ্ধিমান সাহা।

জানিয়েছিলেন, কথা রাখেননি দাদি। সৌরভ নাকি বলেছিলেন, তিনি থাকতে ভাবতে হবে না ঋদ্ধিকে। কিন্তু তাঁর আমলেই বাদ পড়তে হয়েছে বাংলার উইকেটকিপার ব্যাটারকে। এই নিয়ে রবিবার কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি সৌরভ গাঙ্গুলি। কিন্তু ঋদ্ধির মন্তব্যে সমর্থন নেই সিএবি সচিব স্নেহাশিস গাঙ্গুলির। বুঝিয়ে দিলেন ব্যক্তিগত সম্পর্ক কোনওভাবেই প্রকাশ্যে আনা উচিত হয়নি। স্নেহাশিস গাঙ্গুলি বলেন, 'সৌরভ ওকে ব্যক্তিগত ভাবে কী বলেছিল আমি জানি না। তবে এইসব কথা ওর প্রকাশ্যে আনা উচিত হয়নি। এগুলো না বললেই পারত। এই বিষয়টা পুরোপুরি নির্বাচক কমিটির ওপর। ওদের সিদ্ধান্তের ওপর কারোর হাত নেই।' শান্ত স্বভাবের ঋদ্ধির ক্ষোভের বহির্প্রকাশ মেনে নিলেও একজন পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে এই সমস্ত বিতর্ক এড়িয়ে চলাই উচিত ছিল বলে দাবি করলেন সিএবি সচিব। 

অনেকেই মনে করছেন বয়সের জন্য জায়গা ছেড়ে দিতে হয়েছে বাংলার উইকেটকিপারকে। কিন্তু এতে সায় নেই স্নেহাশিসের। দাবি করেন, এর থেকেও বেশি বয়সে অনেকেই খেলছেন। আসল হল ফর্ম। এবারের রঞ্জি থেকে নিজেই সরে দাঁড়িয়েছেন ঋদ্ধিমান। তবে সদ্য শনিবার জানিয়েছেন, বাংলা মূলপর্বে উঠলে খেলতে পারেন। ঋদ্ধির জন্য যে বাংলা দলের দরজা খোলা সেটা জানিয়ে দিলেন সিএবি সচিব। তবে পাশাপাশি জানালেন অভিষেক পোড়েলের মতো তরুণদেরও সুযোগ দিতে হবে। এই প্রসঙ্গে স্নেহাশিস বলেন, 'ঋদ্ধির জন্য বাংলা দলের দরজা সবসময় খোলা। ও চাইলে রঞ্জি খেলতেই পারে। ও নিজেই রঞ্জি থেকে সরে দাঁডিয়েছিল। তবে আমরা নতুনদের সুযোগ দেওয়ারও পক্ষপাতী। অভিষেক পোড়েলের মতো তরুণদেরও সুযোগ দিতে হবে।' ঋদ্ধি না অভিষেক? বাংলা দলে প্রথম পছন্দ কে? নির্দিষ্ট একজনকে বেছে নিতে পারেননি সিএবি সচিব।

আকর্ষণীয় খবর