আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন যেন। তিনি মাঠে নামলেই শতরান করবেন। রেকর্ডের পর রেকর্ড তৈরি করবেন। বিপক্ষ বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা তো বটেই। কেপটাউনও যার ব্যতিক্রম নয়। ১৬০ রানের অপরাজিত ইনিংসে দম্ভ ফুটে উঠেছে। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে একদিনের ক্রিকেটে কোনও ভারতীয় ব্যাটসম্যান এক ইনিংসে এত রান করেননি। তিনি ছাপিয়ে গেলেন সৌরভ গাঙ্গুলিকে। ২০০১ সালে জোহানেসবার্গে ১২৭ করেছিলেন সৌরভ। কেপটাউনে আরও কয়েকটি রেকর্ড করেছেন কোহলি। ১৬০ রান করার ফাঁকে ১২টি চার ও ২টি ছয় মেরেছেন বিরাট। অর্থাৎ ১০০ রান করেছেন দৌড়ে। তা সিঙ্গলস হোক, কিংবা দৌড়ে ২ বা ৩ রান নেওয়াই হোক। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে রেকর্ডটা আগে ছিল সৌরভের দখলে। ১৯৯৯ সালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ১৩০ রান করেছিলেন সৌরভ। যার মধ্যে ৯৮ রান করেছিলেন সিঙ্গলস, দৌড়ে ২ বা ৩ রান নিয়ে। বিশ্বরেকর্ডটা আবার ভারতের প্রাক্তন কোচ গ্যারি কার্স্টেনের দখলে। ১৯৯৬ বিশ্বকাপে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর বিরুদ্ধে ১৮৮ করেছিলেন কার্স্টেন। যার মধ্যে ১১২ রান ছিল সিঙ্গলস, ২ কিংবা ৩। 
কোহলির কথা আলাদাভাবে বলতে হবে। কারণ দীর্ঘ ইনিংসের মাঝে পায়ে ক্রাম্প হয়েছিল বিরাটের। তাও সিঙ্গলস নিতে পিছপা হননি। উইকেটের মাঝে ক্রমাগত দৌড়ে গেছেন। এখানেই শেষ নয়। কেপটাউনের নিউল্যান্ডসে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে একদিনের ক্রিকেটে প্রথম শতরান করলেন কোনও ভারতীয়। যদিও নিউল্যান্ডসে সৌরভেরও শতরান ছিল ২০০৩ সালে। তবে সৌরভ সেঞ্চুরি করেছিলেন কেনিয়ার বিরুদ্ধে। সৌরভের আরও একটি রেকর্ড ভেঙেছেন বিরাট। সৌরভ অধিনায়ক হিসেবে করেছিলেন ১১ শতরান। ১৪২ ইনিংসে। কোহলি ৪৩ ইনিংসে করে ফেলেছেন ১২ শতরান। অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক রিকি পন্টিংয়ের একটি রেকর্ড টপকে গেছেন বিরাট। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে দ্বিপাক্ষিক একদিনের সিরিজে ২০০১ সালে রিকি পন্টিং ২৮৩ রান করেছিলেন। যা ছিল সর্বোচ্চ। বিরাট ৩ ম্যাচে করে ফেলেছেন ৩১৮। কোথায় থামবেন বিরাট?‌ ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top