আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ব্রিসবেনের হোটেলে জেলবন্দিদের মতো দিন কাটছিল। এবার তার উপর যোগ হল করোনার নতুন স্ট্রেনে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা। যার জেরে আরও কঠোর কোয়ারেন্টিনে চলে যেতে হল টিম ইন্ডিয়াকে। ব্রিসবেনে রাহানেরা যে হোটেলে রয়েছেন, তার পাশের হোটেলেই একজন অতিথির শরীরে ব্রিটেনের নতুন করোনা স্ট্রেনের হদিশ মিলেছে। যা বেশ উদ্বেগের। করোনার এই স্ট্রেনটি আগের থেকে ৭০ শতাংশ বেশি সংক্রামক। তাই কোনওরকম ঝুঁকি নিতে চাইছে না কুইন্সল্যান্ড সরকার। টিম ইন্ডিয়াকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে আরও কঠিন কোয়ারেন্টিনে। সেই আইপিএল থেকে টানা প্রায় চার মাস জৈব বলয়ে থেকে এমনিতেই মানসিকভাবে বিধ্বস্ত টিম ইন্ডিয়ার ক্রিকেটাররা। তারপর আবার এই কঠোর কোয়ারেন্টিন ক্রিকেটারদের আরও বিধ্বস্ত করবে বলেই মনে করছে ক্রিকেট মহল।
এমনিতেই ব্রিসবেনে নামার পর যে হোটেলে ভারতীয় দলকে উঠতে হয়েছে, সেটি অত্যন্ত নিম্নমানের। হোটেলে রুম সার্ভিস, হাউস কিপিং, কিছুই নেই! জিম যেটা আছে, সেটা খুবই সাধারণ মানের। আন্তর্জাতিক পর্যায়ের মোটেই নয়। সুইমিং পুল আছে বটে, কিন্তু সেখানে যাওয়ার অনুমতি নেই। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের দাবি, ওই হোটেলের শৌচালয়ও নাকি নিজেদেরই পরিচ্ছন্ন রাখতে হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেটারদের। যা জানার পর বিষয়টি নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি এবং সচিব জয় শাহ। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া আশ্বাস দেয় দ্রুত ক্রিকেটারদের ভাল পরিষেবা নিশ্চিত করা হবে। বিসিসিআইয়ের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক হয়েছে। কিন্তু এরই মধ্যে ঘটে গেল অঘটন।
অসি সংবাদমাধ্যম সূত্রের খবর, ব্রিসবেনে রাহানেদের পাশের হোটেলে একজন অতিথির অতি সংক্রামক ‘বিলিতি’ স্ট্রেনের করোনা ধরা পড়েছে। ওই হোটেলের ২৫০ জন অতিথিকেই অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে কোয়ারেন্টিনে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। এঁদের প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষা হচ্ছে। ঠিক পাশের হোটেলে এই কাণ্ড ঘটায় ভারতীয় দলকে নিয়েও উদ্বেগ বাড়ছে। টিম ইন্ডিয়ার তারকাদের এবার আরও কঠোর কোয়ারেন্টিন বিধি মানার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যা পরিস্থিতি তাতে আগামী দু’দিন কার্যত ঘরবন্দিই থাকতে হবে টিম ইন্ডিয়াকে। তাতেও সংক্রমণের আশঙ্কা কমছে না। কারণ, ১৫ জানুয়ারি শুরু হতে চলা তৃতীয় টেস্টের জন্য গাব্বায় ৫০ শতাংশ দর্শক প্রবেশের অনুমতি দিয়েছে সেখানকার সরকার। 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top