‌আজকালের প্রতিবেদন: আইএসএল খেলার লক্ষ্যে শ্রী সিমেন্ট ইস্টবেঙ্গল ফাউন্ডেশন–এর নামে মঙ্গলবার এফএসডিএলকে মেল মারফত দরপত্র জমা দিল ইস্টবেঙ্গল। শ্রী সিমেন্টের অ্যাডভাইজার শ্রেণিক শেঠ জানালেন, ‘‌প্রক্রিয়াটি যৌথভাবে ইস্টবেঙ্গল ও ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্ট সম্পন্ন করেছে। সফট কপি জমা হয়েছে। হার্ড কপি ১৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পৌঁছে যাবে। নতুন কোম্পানির নাম নথিভুক্ত করা এবং কোন নামে খেলবে দল, সেটা দেখছে ফেডারেশন ও এফএসডিএল। এগুলো নিয়ে সমস্যা হবে না।’‌ শেষপর্যন্ত শ্রী সিমেন্ট ইস্টবেঙ্গল ফাউন্ডেশনের তরফেই দরপত্র জমা পড়েছে এফএসডিএলের কাছে। এএফসি ক্লাব লাইসেন্সিংয়ের প্রক্রিয়ায় এই নতুন কোম্পানির নামে নথিভুক্ত করার আবেদন গেছে ফেডারেশনেও। 
নতুন কোম্পানির নামে দরপত্র দেওয়া নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছিল। আগের ইনভেস্টর কোয়েসের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ার পর ইস্টবেঙ্গল ক্লাব প্রাইভেট লিমিটেড নামে কোম্পানি গঠিত হয়। যেহেতু এএফসি ক্লাব লাইসেন্সিং প্রক্রিয়ায় ইস্টবেঙ্গল ক্লাব প্রাইভেট লিমিটেড অংশ নিয়েছিল, তাই এক মরশুমে অন্য কোনও নামে লাইসেন্সিংয়ে অংশ নেওয়া আটকাচ্ছিল। 
জট ছাড়াতে এগিয়ে এসেছেন ফেডারেশন সচিব কুশল দাস। এএফসি–র কাছে আবেদন করেছেন, ইস্টবেঙ্গলের ক্ষেত্রে বিশেষ ক্ষমতা প্রয়োগ করে নতুন কোম্পানির নামে লাইসেন্সিং প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে দেওয়া হোক। কুশল জানালেন, ‘ইস্টবেঙ্গলের বিষয়টা আলাদা। অতিমারীর মাঝেও ইনভেস্টর জোগাড় করে আইএসএল খেলার উদ্যোগ নিয়েছে। মোহনবাগানের মতো ইস্টবেঙ্গল আইএসএল খেলুক, বরাবর চেয়েছি। তাই ওদের কথাতেই এএফসি–র কাছে অনুরোধ রেখেছি নতুন কোম্পানি শ্রী সিমেন্ট ইস্টবেঙ্গল ফাউন্ডেশনকে লাইসেন্সিংয়ের আওতায় নিয়ে আসতে। আশা করছি, পরিস্থিতি বুঝে এএফসি এর অনুমোদন দেবে।’‌ কুশল দাসের এই আশা করার যথেষ্ট কারণ আছে। ফিফা কাউন্সিল মেম্বার হিসেবে ফেডারেশন সভাপতি প্রফুল প্যাটেলের এএফসি–তে বড়সড় প্রভাব আছে। 
এদিকে, দরপত্র জমার পাশাপাশি কোচ নিয়োগ, দল গঠন ও গোয়ায় আইএসএল খেলতে যাওয়ার বিষয়ে জোরকদমে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে ক্লাব ও ইনভেস্টর মহলে। শ্রেণিক বলেন, ‘প্রথম লক্ষ্য ছিল দরপত্র জমা করা। সেটা হয়েছে। এবার খুব শিগগিরই কোচ ঠিক করতে চাই। ক্লাব একঝাঁক ফুটবলার ইতিমধ্যেই নিয়েছে। তার থেকে একটা বাছাই তালিকা চেয়েছি। বাছাইয়ের দায়িত্ব ছেড়েছি মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য, ভাস্কর গাঙ্গুলি, তরুণ দে, তু্ষার রক্ষিতের মতো প্রাক্তনদের ওপর। তাঁরা ফুটবলারদের বাছলে তাদের ভিডিও ক্লিপিংস পাঠাব নতুন কোচের কাছে। তিনি চূড়ান্ত দল বাছবেন। সংখ্যাটা ১৮ জন হলেই ভাল। কারণ, এর সঙ্গে ৬ থেকে ৭ জন বিদেশি ফুটবলার যোগ দেবে। এই প্রক্রিয়াটা সম্পূর্ণ হলে ফেডারেশনে ফুটবলারদের নাম নথিভুক্ত করতে তালিকা পাঠানো হবে।’‌ নামী কোনও ক্রীড়া বা অন্য জগতের ব্যক্তিত্বকে দলের ব্র‌্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসেবে নিয়োগ করার ভাবনাচিন্তাও চলছে ইনভেস্টরের তরফে।
দরপত্রের হার্ড কপি জমা পড়লেই এফএসডিএল ১১ নম্বর দল হিসেবে ইস্টবেঙ্গলের নাম সরকারিভাবে ঘোষণা করার সঙ্গে সঙ্গে আইএসএল সূচিও জানাবে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top