আজকালের প্রতিবেদন: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে বড় রান পাননি। তবু আলোচনার কেন্দ্রে সেই ভারত অধিনায়ক। সোশ্যাল মিডিয়ায় মন্তব্যের ঝড় বিরাট কোহলিকে নিয়ে!‌
অ্যান্টিগায় ভারতের ইনিংসের সময় কোহলিকে দেখা গিয়েছে ড্রেসিংরুমে মন দিয়ে একটি বই পড়তে। পরনে টি–শার্ট এবং শর্টস। ড্রেসিংরুংমের ব্যালকনিতে বসে বই–হাতে দেখা গিয়েছে বিরাটকে। ভ্রূয়ের কুঞ্চন বলে দিচ্ছে, যথেষ্ট মনোযোগ দিয়েই মোটা বইটি পড়ছেন কোহলি। ছবি দেখে আরও বোঝা যাচ্ছে, আপাতত বইয়ের শুরুর দিকেই রয়েছেন কোহলি। 
তাঁর পুস্তকপাঠরত ছবিটিতে বইয়ের নামটি দেখার পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘ট্রোলড’ হয়েছেন কোহলি। কারণ, বইয়ের নাম ‘‌ডিটক্স ইওর ইগো:‌ সেভেন ইজি স্টেপস টু অ্যাচিভ ফ্রিডম, হ্যাপিনেস অ্যান্ড সাকসেস ইন ইওর লাইফ’‌। বইটি লিখেছেন স্টিভেন সিলভেস্টার। কীভাবে নিজের ইগো নিয়ন্ত্রণ করবেন, তা নিয়েই যে বই, তা সেটির শিরোনামই বলে দিচ্ছে। কোহলির সেই বই পড়ার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে সময় নেয়নি। মাঠে ভারত অধিনায়কের আগ্রাসন নিয়ে কম চর্চা হয় না। ফলে তাঁর ওই বইটি পড়া নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় মুহূর্তে নানা মন্তব্য শুরু হয়ে যায়। কেউ যেমন মজা করেছেন, তেমনই অনেকে কটাক্ষও ছুঁড়ে দিয়েছেন। একজন লিখেছেন, ‘‌বিরাট কোহলি এমন একটা বই পড়ছেন, যা তাঁর জন্য যথার্থ’‌। অন্য একজনের বক্তব্য, ‘‌অবশেষে অধিনায়ক কোহলি পড়লেন ডিটক্স ইয়োর ইগো‌’‌! এক ব্যক্তি লিখেছেন, ‘‌কুছ হো না হো!‌ শেষ হাসিটা হাসলেন স্টিভেন সিলভেস্টার!‌ এবার সবাই বইয়ের বিক্রির ওপর নজর রাখুক’!‌‌ অপর এক ব্যক্তির মন্তব্য আরও আকর্ষণীয়, ‘‌ভাবার চেষ্টা করছি, কে বিরাট কোহলিকে ‘‌ডিটক্স ইয়োর ইগো’‌ বইটি পড়ার জন্য রাজি করিয়েছে’।‌ ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top