সংবাদ সংস্থা
দিল্লি, ২৯ জুন

২০০৭ টোয়েন্টি২০ বিশ্বকাপে শচীন তেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলিকে খেলতে বারণ করেছিলেন রাহুল দ্রাবিড়। তেরো বছর আগে কেন এ কাজ করেছিলেন দ্রাবিড়?‌ রহস্য ফাঁস করলেন তৎকালীন জাতীয় দলের কোচ লালচাঁদ রাজপুত। 
মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে একঝাঁক তরুণ তুর্কি সেবার ফাইনালে পাকিস্তানকে হারিয়ে কাপ জিতেছিল। দলে ‘‌বিগ থ্রি’‌ শচীন, সৌরভ, দ্রাবিড় না থাকা সত্ত্বেও। রাজপুত বলেছেন, ‘‌সেবার শচীন, সৌরভকে খেলতে নিষেধ করেছিল দ্রাবিড়ই। বিশ্বকাপের ঠিক আগে ইংল্যান্ড সফরে ক্যাপ্টেন ছিল দ্রাবিড়। বেশ কয়েকজন প্লেয়ার ইংল্যান্ড থেকেই সোজা উড়ে গিয়েছিল জোহানেসবার্গে টি২০ বিশ্বকাপ খেলতে। তরুণদের সুযোগ দেওয়া হোক, এই মনোভাব কাজ করেছিল ওদের মধ্যে। কিন্তু ভারত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ওদের নিশ্চয়ই আপশোস হয়েছিল। কারণ শচীন আমাকে অনেকবারই বলেছিল, এত বছর ক্রিকেট খেলছে অথচ বিশ্বকাপ জিততে পারেনি। ওর সেই আক্ষেপ অবশ্য মেটে ২০১১ সালে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর।’‌ 
২০০৭ বিশ্বকাপে ভারতীয় ড্রেসিংরুমের স্লোগান কী ছিল, সে কথাও জানিয়েছেন রাজপুত। বলেছেন, ‘‌‌সেবার ড্রেসিংরুমের আবহ ছিল দুর্দান্ত। দলে তরুণ মুখের সংখ্যাই ছিল বেশি। প্লেয়াররা যেন চাপে না থাকে সব সময় খেয়াল রাখা হত। আমাদের থিম ছিল, টেনশন লেনে কা নেহি, দেনে কা (‌‌টেনশন নেবে না। ফিরিয়ে দেবে)‌‌। ধোনি এই স্লোগানে বিশ্বাসী ছিল। অন্যরা কী বলছে কান দিত না।’‌ 
রাজপুত অবশ্য বিশ্বাস করেন, ভারতীয় ক্রিকেটের মানসিকতা বদলেছেন সৌরভ। সেই পথে পরবর্তী সময়ে হেঁটেছেন ধোনি। বলেছেন, ‘‌দলের প্লেয়ারদের সব সময় আত্মবিশ্বাস জোগাত সৌরভ। কোনও সন্দেহ নেই ও–ই ভারতীয় ক্রিকেটে বদল এনেছে। সৌরভের দেখানো রাস্তায় এগিয়েছে ধোনি। কোনও প্লেয়ারের যোগ্যতা আছে মনে করলে তাকে পর্যাপ্ত সুযোগ দিয়েছে ধোনি। তার ওপর আস্থা রেখেছে।’‌ ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top