সংবাদ সংস্থা, হ্যামিলটন: জন্মদিনেই রানের খরা কাটল মায়াঙ্ক আগরওয়ালের। সাম্প্রতিক সময়ে একেবারেই রানের মধ্যে ছিলেন না তিনি। প্রথম শ্রেণি, একদিনের আন্তর্জাতিক, লিস্ট ‘‌এ’ মিলিয়ে এগারো ইনিংসের একটাতেও চল্লিশের গণ্ডি পেরোতে পারেননি মায়াঙ্ক। তবে তাঁর রানের খরা কাটার ইঙ্গিত ছিল শনিবারই। সেডন পার্কে নিউজিল্যান্ড একাদশের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের শেষে ১৭ বলে ২৩ রানে অপরাজিত ছিলেন মায়াঙ্ক। রবিবার সেই ছন্দ বজায় রেখেই ৮১ রান করলেন তিনি। ৯৯ বলের ইনিংসে রয়েছে ১০টি চার, ৩টি ছয়। মায়াঙ্ক আউট হননি। ঋদ্ধিমানকে খেলার সুযোগ করে দিতেই তিনি মাঠ ছাড়েন।
ভারত ও নিউজিল্যান্ড একাদশের তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ ড্র হয়েছে। আর এক ওপেনার পৃথ্বী শ আগের দিন ৩৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। রবিবার তিনি ৪ রান যোগ করে আউট হন। বড় রান পেলেন না শুভমান গিল (‌৮)‌। একদিনের মেজাজে খেললেন ঋষভ পন্থ (‌৬৫ বলে ৭০, ৪টি চার, ৪টি ছয়)‌। তৃতীয় উইকেটে মায়াঙ্ক এবং ঋষভ যোগ করেন ১০০ রান। ঋদ্ধিমান সাহা ৩০ এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিন ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন। ঋদ্ধির ইনিংসে ছিল ৫টি চার। দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ৪৮ ওভারে ভারত ২৫২/‌৪ তোলার পর খেলা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়। রবিবার মধ্যাহ্নভোজের বিরতির পর এক ঘণ্টা খেলা হয়েছে। প্রথম ইনিংসে ভারতের ২৬৩–র জবাবে নিউজিল্যান্ড একাদশ করেছিল ২৩৫। 
রবিবার ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট স্বস্তি পেয়েছে মায়াঙ্কের ইনিংসে। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে ওপেনার মায়াঙ্কের রানে ফেরা নিশ্চিতভাবেই খুশি করবে কোহলি–শাস্ত্রীদের। এদিন জোরে বোলারদের বিরুদ্ধে কয়েকটা দুর্দান্ত অন–ড্রাইভ এবং পুল শট মেরেছেন মায়াঙ্ক। ম্যাচের পর তিনি বলেছেন, ‘‌খুব ভাল একটা ম্যাচ হল। টেস্ট সিরিজের আগে তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়ে ভালই হয়েছে। রান পাওয়াটা ছিল খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রথম ইনিংসে (‌মায়াঙ্ক করেছিলেন ১ রান)‌ উইকেট ছিল বেশ কঠিন। শুরুতেই আউট হয়েছিলাম। কিন্তু এটা বেশ ভাল হয়েছে যে, দ্বিতীয় ইনিংসে আরও একটা সুযোগ পেয়েছি। এই আত্মবিশ্বাসই টেস্ট সিরিজে ধরে রাখতে চাই। আমার ব্যাটিংয়ে কোথায় কোথায় উন্নতি দরকার, তা নিয়ে ব্যাটিং কোচ বিক্রম রাঠোরের সঙ্গে আলোচনা করেছি। যা কাজে দিয়েছে।’‌ পৃথ্বীর সঙ্গে তাঁর জুটি নিয়ে মায়াঙ্কের মন্তব্য, ‘‌আমরা একসঙ্গে অনেক ক্রিকেট খেলেছি। তাই আমাদের মধ্যে একটা বোঝাপড়া রয়েছে। নিজেদের মধ্যে মত বিনিময় করি। জুনিয়র এবং সিনিয়র, এই দলে এমন কোনও সংস্কৃতি নেই।’‌ 
রবিবার ছিল মায়াঙ্কের ২৯তম জন্মদিন। কর্ণাটকের ওপেনারের মুখে কেক মাখিয়ে দেওয়া হচ্ছে, এমন কয়েকটা ছবি টুইট করেছে বিসিসিআই। ২১ ফেব্রুয়ারি ওয়েলিংটনে শুরু প্রথম টেস্ট। তার আগে জন্মদিনে রানে ফেরা মায়াঙ্কের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিল অনেকটাই।‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top