আজকালের প্রতিবেদন
কেন্দ্রীয় সরকারের গাইডলাইন প্রকাশের পরই ব্যক্তিগতভাবে ক্রিকেটাররা মাঠে নেমে পড়েছেন। ফিট থাকতে ট্রেনিংও শুরু করেছেন। কিন্তু দলগতভাবে মাঠে নামতে বিরাট কোহলিদের আরও অন্তত একটা মাস অপেক্ষা করতে হবে। জানিয়েছেন ভারতীয় বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি।
আগস্ট মাসের আগে কোনওভাবেই ভারতীয় দলের ক্যাম্প শুরু হচ্ছে না। রবিবার এক টেলিভিশন চ্যানেলকে এমনটাই জানিয়েছেন সৌরভ। বোর্ড সভাপতির এমন মন্তব্যের পর স্পষ্ট, করোনা আবহে আরও এক মাস ব্যক্তিগতভাবেই ট্রেনিং চালাতে হবে বিরাটদের। একসঙ্গে মাঠে নামতে তাঁদের এখন অপেক্ষা ছাড়া আর কিছুই করণীয় নেই।
মার্চের শেষ সপ্তাহ থেকে ক্রিকেটাররা গৃহবন্দি। এমন পরিস্থিতিতে ফিটনেস ধরে রাখাই যে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ, সেকথা কম–বেশি প্রায় সকলেই স্বীকার করে নিয়েছিলেন। রোহিত শর্মা বলেছিলেন, খেলা শুরু হলে বেশি সমস্যায় হবে ব্যাটসম্যানদের। সুইট স্পট (‌ব্যাটের মাঝখান দিয়ে বলে শট মারা)‌ খুঁজে পেতে অন্তত দেড় মাস লাগবে বলেছিলেন তিনি। কার্যত একই সুর শোনা গিয়েছিল শিখর ধাওয়ানের গলাতেও।
লকডাউনের পর ফিটনেস সমস্যাই মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়াবে, বলেছিলেন কোচ রবি শাস্ত্রীও। কিন্তু সরকারি নির্দেশিকায় খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগতভাবে ট্রেনিংয়ে ছাড় দেওয়ার পরই মাঠে নেমে পড়েছেন ক্রিকেটাররা। ইতিমধ্যে বলে থুতুর ব্যবহার নিষিদ্ধ করে নির্দেশিকা জারি করেছে আইসিসি। সবকিছু মাথায় রেখেই মহম্মদ সামি, কুলদীপ যাদব–সহ বোলাররা ফিজিক্যাল ট্রেনিংয়ের পাশাপাশি নেটে বোলিংও করছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেইসব ছবিও পোস্ট করছেন। তবে সবকিছুই এককভাবে।
ওদিকে, অক্টোবরে আসন্ন টি২০ বিশ্বকাপের ভবিষ্যৎ নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি আইসিসি। জুলাইয়ের আগে সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব নয় বলেও তারা জানিয়ে দিয়েছে। বিশ্বকাপ পিছিয়ে গেলে সেই সময় আইপিএল করার পরিকল্পনা রয়েছে ভারতীয় বোর্ডের। আলোচনায় রয়েছে এশিয়া কাপও। ক্রিকেটের মতো দলগত খেলায় টুর্নামেন্টে সাফল্য পেতে খেলোয়াড়দের দলগত সংহতি অত্যন্ত জরুরি। সেজন্য একসঙ্গে মাঠে নামতে হবে। শোনা যাচ্ছিল, সবকিছু মাথায় রেখেই হয়তো জুলাইয়েই শিবির শুরু করবেন বিরাট বাহিনী। বেঙ্গালুরু–সহ দুটো জায়গায় নামও উঠে আসছিল সম্ভাব্য কেন্দ্র হিসেবে। কিন্তু এদিন বোর্ড সভাপতির মন্তব্য সব জল্পনায় জল ঢেলে দিল।‌ (ফাইল ছবি)

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top