আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বেশ কিছুদিনের জন্য সম্ভবত স্বস্তি পেতে চলেছেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি এবং সচিব জয় শাহ। দুই শীর্ষকর্তার ‘কুলিং অফ’ আটকাতে সুপ্রিম কোর্টে দায়ের করা বোর্ডের আবেদনের শুনানি আগামী ১৭ আগস্ট না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। সূত্রের খবর, আগামী সোমবার মামলাটির শুনানি হওয়ার কথা থাকলেও চলতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তা শুনানির জন্য তালিকাভুক্তও করা হয়নি। তাই নির্ধারিত দিনে শুনানির সম্ভাবনা বেশ কম। তাই যতদিন না শুনানি হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত বাড়বে সৌরভ এবং জয় শাহর মেয়াদ।
লোধা কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী, রাজ্য সংস্থা বা বিসিসিআইয়ে টানা ছ’বছর কোনও পদে থাকলে তাঁকে ৩ বছরের জন্য বাধ্যতামূলক ‘কুলিং অফ’ পিরিয়ডে যেতে হয়। সেই নিয়ম অনুযায়ী জুনে শেষ হয়েছে বোর্ড সচিব জয় শাহর মেয়াদ। জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির কার্যকাল শেষ হয়। গুজরাট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সচিব পদে জয় শাহ আসেন ২০১৩ সালে। বিসিসিআইয়ে আসার আগে পর্যন্ত তিনি সেই অ্যাসোসিয়েশনেই ছিলেন। সৌরভও সিএবিতে প্রথমে সচিব, পরে প্রেসিডেন্টের চেয়ারে ৫ বছর কাটিয়েছেন। গত বছর বোর্ড প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন তিনি। ফলে সৌরভ বা জয় শাহরা জানতেন, লোধা কমিশনের আইন মানতে হলে বেশিদিন চেয়ারে থাকা যাবে না।
গত ডিসেম্বরে বোর্ডের এজিএমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যেভাবেই হোক আগামী বছর ছয়েক এই কমিটিকেই দায়িত্বে রাখতে হবে। কারণ, এত কম সময়ে ভারতীয় ক্রিকেটে কোনও বৈপ্লবিক পরিবর্তন সম্ভব নয়। তাছাড়া তাঁদের কার্যকালের বেশিরভাগ সময়টা করোনা মহামারীর আবহেই কেটে গেল। এই পরিস্থিতিতে যদি তাঁরা দায়িত্ব ছেড়েও দেন তাতেও বোর্ড অথৈ জলে পড়বে। তাই সব দিক ভেবেচিন্তে গত ২১ এপ্রিল শীর্ষ আদালতে ‘কুলিং অফ’ তোলার আবেদন জানানো হয়। বলা হয় সৌরভের টিমের মেয়াদ বাড়িয়ে ২০২৫ পর্যন্ত করে দেওয়া হোক।
গত ২২ জুলাই মামলাটি ওঠে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে। আদালত সৌরভদের আবেদন গ্রহণ করলেও দু’সপ্তাহ পর অর্থাৎ ১৭ আগস্ট মামলাটির শুনানির দিন ধার্য করে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে আগামী সোমবারও শুনানি হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম। 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top