সংবাদ সংস্থা, কার্ডিফ: ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে কার্ডিফে তাঁর সেঞ্চুরি জলে গিয়েছে। ১২১ রান করলেও বাংলাদেশ ম্যাচ হেরেছে ১০৬ রানে। তবে সাকিব আল হাসান যে তিন নম্বর জায়গায় ব্যাটিংটা তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছেন, সেকথা স্বীকার করে নিয়েছেন। বলেন, ‘‌মুহূর্তটা উপভোগ করছি। এখন ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিংয়েও দলে অবদান রাখতে চাই।’‌
শেষ চার একদিনের ম্যাচে সাকিবের নামের পাশে তিনটি হাফ সেঞ্চুরি ও একটি সেঞ্চুরি। তবে ব্যাটিংয়ে নিজেকে তিন নম্বর জায়গায় তুলে আনার পথটা মসৃণ ছিল না সাকিবের কাছে। সেকথা স্বীকার করে বলেন, ‘‌অবশ্যই এটা আমার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। তবে সেটার জন্য প্রত্যেককে বোঝাতে হয়েছে। কারণ একটা ম্যাচে রান না পেলেই ওরা চিন্তা–ভাবনা শুরু করে দিত, হয়তো পাঁচ নম্বরে বা আরও তলায় খেলালে আমার ব্যাট থেকে রান আসবে। ফলে, অন্যরকম একটা চ্যালেঞ্জ ছিল।’‌
অবশ্য চালেঞ্জটা তিনি নিতে চেয়েছিলেন অনেকদিন আগেই। হাতুরেসিংহে তখন বাংলাদেশের কোচ। টি২০ ফরম্যাটে তিন নম্বরে ব্যাট করে সাফল্য পাচ্ছিলেন সাকিব। তাই একদিনের ক্রিকেটেও তিন নম্বরে ব্যাট করবেন বলে কোচকে অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু হাতুরেসিংহে রাজি হননি। সাকিবের যুক্তিও কাজ করেনি। শোনা যায়, সেদিন কোচের সঙ্গে সাকিবের কথোপকথন শেষপর্যন্ত উত্তেজক পর্যায়ে চলে গিয়েছিল।
এরপর পদ্মা দিয়ে অনেক জল গড়িয়েছে। হাতুরেসিংহের বিদায়ের পরই নিজের পছন্দের জায়গায় ব্যাট করা শুরু করেন সাকিব। অধিনায়ক মাশরাফে মোর্তাজা এবং বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসানের সম্মতি আদায় করে নেওয়ায় কাজটা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছিল তাঁর কাছে। ফলে নিজের খেলাটাও খেলতে পেরেছেন তিনি। 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top