India-New Zealand: পন্টিংকে ছুঁলেন রোহিত, কোহলির রেকর্ড ভাঙলেন গিল! ৩৮৬ রানের টার্গেট সেট করল ভারত 

আজকাল ওয়েবডেস্ক: রোহিত শর্মা-শুভমন গিলের শতরানে ভর করে রানের পাহাড়ে ভারত। নির্ধারিত ওভারের শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ভারতের রান ৩৮৫। ইন্দোরে শুরুটা করেন রোহিত-শুভমন জুটি। শেষ করেন হার্দিক পাণ্ডিয়া।‌ নিয়মরক্ষার ম্যাচে টসে জিতে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠান নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক টম লাথাম। সেটাই কাল হল। কিউয়ি বোলারদের কালঘাম ছুটিয়ে দেন ভারতীয় ওপেনাররা। শ্রীলঙ্কা সিরিজ থেকে দুর্ধর্ষ ফর্মে গিল। এদিন ছন্দ ফিরে পান রোহিতও। যা বিশ্বকাপের আগে টিম ম্যানেজমেন্টকে স্বস্তি দেবে। প্রথম থেকেই আগ্রাসী মনোভাব নিয়ে শুরু করেন রোহিত এবং শুভমন। ছোট মাঠ এবং ফাস্ট আউটফিল্ডের সুযোগ নেয় দুই ভারতীয় ওপেনার। তিন বছর পর একদিনের ক্রিকেটে শতরান করেন রোহিত শর্মা। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে শেষ সেঞ্চুরি করেছিলেন হিটম্যান। তারপর থেকে খরা চলছিল। ৩০, ৪০ রান করলেও শতরান পাচ্ছিলেন না। এদিন ৮৩ বলে একশো সম্পূর্ণ করেন ভারত অধিনায়ক। তাতে রয়েছে ৬টি ছয় এবং ৯টি চার। রোহিতের ৩০তম একশো। রিকি পন্টিংকে ধরে ফেললেন। একদিনের ক্রিকেটে প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়কের ৩০টি শতরানে পৌঁছতে লেগেছিল ৩৭৫টি ম্যাচ। রোহিত সেই মাইলফলকে পৌঁছলেন ২৪১টি ম্যাচ খেলে। ফলে একদিনের ক্রিকেটে সর্বাধিক শতরানের তালিকায় পন্টিংয়কে‌ ছাপিয়ে গেলেন রোহিত।

তালিকায় সবার ওপরে শচীন তেন্ডুলকর। তাঁর ৪৯টি শতরান রয়েছে।

এদিন উইকেটের অন্য প্রান্তে দুরন্ত শুভমনও। স্বপ্নের ফর্মে ২৩ বছরের ওপেনার। ৭২ বলে শতরান সম্পন্ন করেন। শেষ চার ইনিংসে নিজের তিন নম্বর শতরান। মোট পাঁচ। মাত্র ৯ দিনের মধ্যেই ভেঙে দিলেন বিরাট কোহলির নজির। ছুঁয়ে ফেললেন বাবর আজমকে। তিন ম্যাচের দ্বিপাক্ষিক একদিনের সিরিজে এতদিন সবচেয়ে বেশি রান করার নজির ছিল বাবরের। তাঁকে ছুঁয়ে ফেললেন শুভমন। এই জুটি ব্যাট করার সময় মনে হচ্ছিল ৪০০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে যাবে ভারত। জুটিতে ২১২ রান যোগ হয়। ১২.৪ ওভারে ১০০ পেরিয়ে যায় টিম ইন্ডিয়া। ১৭.৫ ওভারে দেড়শো। ফার্গুসনের এক ওভারে ২২ রান নেন গিল। সমস্ত কিউয়ি বোলারকে পিটিয়ে ছাতু করে ভারতের ওপেনিং জুটি। ২৪.১ ওভারে ২০০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে যায় ভারত। কিন্তু শতরান করেই আউট হন রোহিত (১০১)। কিছুক্ষণ পরই ফিরে যান শুভমন (১১২)। এরপরই একের পর এক উইকেট হারাতে শুরু করে ভারত। একটা সময় ২১২ রানে ১ উইকেট থেকে ৩১৩ রানে ৬ উইকেট পড়ে যায় টিম ইন্ডিয়ার। বড় রান পাননি বিরাট কোহলি (৩৬)। মিডল অর্ডারে আবার ব্যর্থ ঈশান কিষাণ (১৭) এবং সূর্যকুমার যাদব (১৪)। এরপর হাল ধরেন হার্দিক পাণ্ডিয়া। ৩টি ছক্কা এবং ৩টি চারের সাহায্যে ৩৮ বলে ৫৪ রান করেন ভারতের সহ অধিনায়ক। শেষদিকে গুরুত্বপূর্ণ ২৫ রান যোগ করেন শার্দূল ঠাকুর। ৫০ ওভারের শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ভারতের রান ৩৮৫। তিনটে করে উইকেট নেন জেকব ডাফি এবং ব্লেয়ার টিকনার। 

আকর্ষণীয় খবর