‌সংবাদ সংস্থা, রিও ডি জেনিরো: বয়সের কারণে তিনি লোকচক্ষুর আড়ালে রয়েছেন অনেকদিনই। কিংবদন্তি ফুটবলার পেলে শারীরিক অসুস্থতার পাশাপাশি ভুগছেন ডিপ্রেশনে। এতটাই যে বাড়ির বাইরে কিছুতেই বেরোতে চান না। ব্রাজিলের এক ওয়েবসাইটে সাক্ষাৎকারে মর্মান্তিক এই কথা জানিয়েছেন পেলের ছেলে এডিনহো।
বেশ কয়েক বছর আগেই পেলের কোমরে ট্রান্সপ্ল্যান্ট করা হয়। কিন্তু চিকিৎসায় কিছু ত্রুটি থেকে যাওয়ায় বারবার ভর্তি হতে হয়েছে হাসপাতালে। একাধিকবার অস্ত্রোপচার হয়েছে। কোমরের কারণে তাঁর হাঁটাচলা ক্রমশ কমে গিয়েছে। সেকথাই বর্ণনা করতে গিয়ে এডিনহো বলেছেন, ‘‌হাঁটাচলার ব্যাপারে বাবা খুব সংবেদনশীল। ট্রান্সপ্ল্যান্টের পরে ঠিকঠাক রিহ্যাব হয়নি। তাই নড়াচড়া করতেও এখন খুব অসুবিধে হয়। এই কারণে বাবা আরও ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছেন।’‌ কথা বলতে বলতেই গলা ভিজে আসছিল এডিনহোর। একটু সামলে যোগ করলেন, ‘‌ভাবুন। উনি ফুটবলের রাজা। এত বড় মাপের একজন মানুষ, আর তিনিই কিনা আজ ঠিক করে হাঁটতে পারেন না। এটা নিয়ে পেলে ভীষণরকম চিন্তিত। তবে এটাও ঠিক, বয়সের ব্যাপারটাও তো অস্বীকার করলে চলবে না।’‌
নিজে হাঁটতে পারেন না। ফলে বিভিন্ন কাজ করতে তাঁর ভরসা ‘‌ওয়াকার’‌। বেশ কিছু অনুষ্ঠানেও তাঁকে ওয়াকার নিয়ে চলতে দেখা গিয়েছে। এডিনহো বলেছেন, ‘‌ওয়াকার দিয়ে বাবার অনেকটাই সুবিধে হয়েছে। অন্তত হুইলচেয়ারের থেকে ভাল। তবে তাতেও হাঁটতে কষ্ট হয়, এটা আমরা বুঝতে পারি।’‌ তবে এডিনহো স্পষ্ট জানিয়েছেন, আগামী দিনে পেলে–কে কোনও অনুষ্ঠানে দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনা কম। তাঁর কথায়, ‘‌কিছুতেই ঘরের বাইরে উনি বেরোতে চান না। রাস্তায় গিয়ে লোকের সামনে পড়ে বিব্রত হতে চান না। বাড়িতে বসে কিছু না করলেও এতটাই আড়ষ্ট, লাজুক তিনি।’‌
গত বছর কিলিয়ান এমবাপের সঙ্গে একটা অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্যারিসে এসেছিলেন পেলে। তবে দীর্ঘ বিমানযাত্রার ধকল সইতে পারেননি। সঙ্গে সঙ্গেই কিডনির সমস্যায় হাসপাতালে ভর্তি হন। তারপর থেকে আর কিংবদন্তি ফুটবলারকে জনসমক্ষে দেখা যায়নি। বছর চারেক আগে শেষবার এসেছিলেন ভারতে।‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top