আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ টানা ছয় ম্যাচে হার। সপ্তম ম্যাচে জয়। ফের একবার হারের সরণিতে ঢুকে পড়ল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বাঙ্গালোর। ১৬ বলে অপরাজিত ৩৭ রানের ইনিংস। যার মধ্যে পাঁচটা চার ও দুটি ছয়। হার্দিক পাণ্ডিয়ার সৌজন্যে এক ওভার বাকি থাকতেই জয় তুলে নিল মু্ম্বই ইন্ডিয়ান্স। জয় এল পাঁচ উইকেটে। 
মাঠে নামার আগেই একটা দুঃসংবাদ এসেছিল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স শিবিরে। চোটের জন্য আইপিএল থেকেই ছিটকে গেলেন জোরে বোলার আলজারি জোশেফ। আগের ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে একটি চার বাঁচাতে গিয়ে কাঁধে চোট পেয়েছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের তরুণ জোরে বোলার। সেই চোটই জোশেফকে ছিটকে দিল। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে আইপিএলের অভিষেক ম্যাচেই ১২ রানে ৬ উইকেট নিয়ে চমকে দিয়েছিলেন জোশেফ। আইপিএলের ইতিহাসে সেরা বোলিং পারফরমেন্স। সেই বোলারের ছিটকে যাওয়া মুম্বইয়ের কাছে নিঃসন্দেহে বড় ধাক্কা। সোমবার জোশেফের পরিবর্তে মালিঙ্গাকে নিয়ে ওয়াংখেড়েতে নামে রোহিত শর্মার দল, বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে। 
টস জিতে ফিল্ডিং নেন রোহিত। উইকেটের কথা ভেবেই আগে বল করার সিদ্ধান্ত, জানান মুম্বই অধিনায়ক। কোহলিও জানিয়ে দেন, টস জিতলে তিনিও ফিল্ডিং নিতেন, কারণ ওয়াংখেড়ের উইকেটে রান তাড়া করাই ভাল। 
পার্থিব প্যাটেলকে নিয়ে ওপেন করতে নেমে বেশিক্ষণ উইকেটে থিতু হতে পারেননি কোহলি। তৃতীয় ওভারের প্রথম বলে ফিরে যান ৮ রান করে। উচ্চতাকে কাজে লাগিয়ে উইকেট থেকে অতিরিক্ত বাউন্স আদায় করেন বেহরেনডর্ফ। তাঁর বল কোহলির ব্যাটের ভেতরের কানায় লেগে জমা পড়ে উইকেটরক্ষক ডিককের হাতে। ২০ বলে ২৮ রান করে পার্থিব আউট হন হার্দিক পান্ডিয়ার বলে। আগের ম্যাচেই ছন্দে ফিরেছিলেন এবি ডিভিলিয়ার্স, হয়েছিলেন ম্যাচের সেরা। এদিনও ব্যাট করলেন স্বচ্ছন্দে। ৫১ বলে করলেন ৭৫। যার মধ্যে ছিল ৬টি চার ও ৪টি ছয়। মইন আলি করলেন ৩২ বলে ৫০। যে ইনিংসে রয়েছে পাঁচটি ওভার বাউন্ডারি। নির্ধারিত ২০ ওভারে আরসিবি তোলে ১৭১/‌৭। মুম্বইয়ের মালিঙ্গা পেলেন চার উইকেট। 
জবাবে দারুণ শুরু করেছিল মুম্বই। ডিকক ও রোহিত প্রথম উইকেটে ৭০ যোগ করেন। ডিকক করেন ৪০। রোহিত করে যান ২৮। সূর্যকুমার যাদব (‌২৯)‌, ইশান কিষান (‌২১)‌ দলের জয়ে অবদান রাখলেন। বাকি কাজটা সারলেন হার্দিক। ১৯ ওভারেই ১৭২/‌৫ তুলে ম্যাচ জিতল মুম্বই। ৮ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে কলকাতাকে টপকে মুম্বই এখন তিনে। আরসিবির ৮ ম্যাচে ২ পয়েন্ট। আছে সাতে। প্লে–অফের আশা আর নেই বললেই চলে। 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top