আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ক্যাপ্টেন কুল তিনি। দলের কঠিন পরিস্থিতিতেও তাঁকে দেখা যায় মাথা ঠান্ডা রেখে দলের হাল ধরেছেন। হার নিশ্চিত জানলেও তাঁর মুখে চিন্তা বা হতাশা দেখা যায় না। দলের ক্রিকেটারদের উপরেও রাগতে দেখা যায় না তাঁকে। এহেন মহেন্দ্র সিং ধোনি আম্পায়ারিং নিয়ে মেজাজ হারালেন। আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ম্যাচে আম্পায়ারের সঙ্গে তর্কে জড়াতে দেখা গেল তাঁকে।
ঘটনাটি ঘটে রাজস্থান ইনিংসের ১৮ তম ওভারে। ব্যাট করছিলেন টম কারেন। বল করছিলেন দীপক চাহার। পঞ্চম বলটি কারেনের থাই প্যাডে লেগে জমা পড়ে ধোনির দস্তানায়। চাহার আউটের আবেদন করেন। এরপর আউট দিয়ে দেন আম্পায়ার। অবাক টম কারেন সঙ্গে সঙ্গে রিভিউ নিতে যান। কিন্তু তিনি খেয়াল করেন আগেই রিভিউ নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ফলে বিরক্ত হয়ে প্যাভিলিয়নের রাস্তা ধরেন তিনি।
তখনই জায়ান্ট স্ক্রিনে আউটের রিভিউ দেখে আম্পায়ারের মনে প্রশ্ন জাগে। তিনি লেগ আম্পায়ারের সঙ্গে কথা বলে থার্ড আম্পায়ার কল করেন। তাতে দেখা যায় বল ধোনির গ্লাভসে যাওয়ার আগেই বল মাটিতে বাউন্স করেছে। তাছাড়া কারেনের ব্যাটে নয়, পায়ে লেগে বল গিয়েছে। ফলে নটআউট দেন থার্ড আম্পায়ার। তারপরেই ফের কারেনকে ডেকে নেন অন ফিল্ড আম্পায়ার।
এরপরেই ধোনিকে দেখা যায় আম্পায়ারদের সঙ্গে কথা বলছেন। তিনি জানতে চান একবার আউট দেওয়ার পরেও কোন যুক্তিতে ব্যাটসম্যানকে ডাকা হল। কারণ রাজস্থানের তো রিভিউ শেষ হয়ে গিয়েছে। জায়ান্ট স্ক্রিনে রিপ্লে দেখে সিদ্ধান্ত বদলের আবেদন নিয়ম বিরুদ্ধ কিনা সেই প্রশ্ন তোলেন মাহি। যদিও এই ব্যাপারে পরে ধোনির তরফে বা আম্পায়ারদের তরফে কিছু জানানো হয়নি।
গোটা ঘটনায় কিন্তু চুপ থাকেননি ধোনির স্ত্রী সাক্ষী। নিম্নমানের আম্পায়ারিং নিয়ে প্রশ্ন তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লেখেন, ‘‌যদি প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়, সেটা সঠিকভাবে ব্যবহার হোক। আউটকে আউট দেওয়া হোক। আর এলবিডব্লিউকে এলবিডব্লিউ।’‌ ধোনি পত্নীর এই মন্তব্যে ইতিমধ্যে আগুনে ঘি পড়েছে। যদিও সাক্ষী সেই টুইট পরে ডিলিট করে দেন। 
প্রসঙ্গত, পাঞ্জাব বনাম দিল্লি ম্যাচেও প্রশ্ন ওঠে আম্পায়ারিং নিয়ে। আম্পায়ারের ‘ওয়ান শর্ট’–এর সিদ্ধান্ত নিয়ে তৈরি হয় বিতর্ক। রিপ্লেতে দেখা যায় ক্রিস জর্ডনের বাড়ানো ব্যাট ক্রিজ ছুঁয়েছিল। অর্থাৎ, রানটি ছিল বৈধ। আম্পায়ারের দৃষ্টিপথে কোনও বাধা ছিল না। তবুও ঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি। ওই রান যোগ হলে দিল্লির বিরুদ্ধে ম্যাচটা জিতেও যেতে পারত পাঞ্জাব। সেই কারণে দলের মালকিন প্রীতি জিন্টাও প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হয়ে টুইট করেন।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top