আজকালের প্রতিবেদন: আইজলের বিরুদ্ধে আই লিগের প্রথম ম্যাচে চামোরোর পারফরমেন্স নিয়ে হতাশ বাগান শিবির। কোচ ভিকুনা তাঁকে  আইজল ম্যাচে পরে নামিয়েছিলেন গোল পাওয়ার আশায়। মাঠে নেমে দাগ কাটতে ব্যর্থ স্প্যানিশ স্ট্রাইকার। প্রথম ট্রান্সফার উইন্ডো বন্ধ হওয়ার আগেই চামোরোকে ছেঁটে ফেলার কথা ভেবেছিলেন কর্তারা। কিন্তু কোচ কিবু ভিকুনার আপত্তিতে সেটা সম্ভব হয়নি। তাঁর কথাতেই আই লিগের জন্য চামোরোকে প্রমাণের সুযোগ দিয়েছিলেন তাঁরা। সে ধৈর্যের বাঁধ এবার ভাঙতে চলেছে। চামোরোর খেলায় কোনও উন্নতি নেই, গোল করা তো দূরে থাক। আইজলের বিরুদ্ধে ড্রয়ের পর চামোরোর ওপর আরও বিরক্ত কর্তারা। তাঁর পরিবর্ত খোঁজার কাজ শুরু হয়ে গেছে। জানুয়ারিতে দ্বিতীয় ট্রান্সফার উইন্ডো খোলা পর্যন্ত চামোরো আই লিগের ম্যাচে দারুণ কিছু করে না বসলে, তাঁর জায়গায় নতুন বিদেশি স্ট্রাইকার আসবেই।
চামোরো নিজেও সেটা বুঝে গেছেন। তাতেই ফোকাসটা সরে গেছে ভাল পারফরমেন্স করা থেকে। কোচ ভিকুনাও মনে করেন, গোল না পেলে স্ট্রাইকারদের ওপর চাপ বাড়ে। আত্মবিশ্বাসে প্রভাব ফেলে। চামোরোর ক্ষেত্রে সেটা ঘটা অসম্ভব নয়। গোল পেলে এই সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসবে চামোরো।
সোমবার বাগান মাঠে অনূর্ধ ১৯ দলের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচের ব্যবস্থা করেছিল ক্লাব। ভিকুনা নামিয়েছিলেন আইজলে না খেলা সিনিয়র ফুটবলারদের। চামোরো ও ফৈয়াজকেও মাঠে নামিয়েছিলেন বাগান কোচ, আইজলে অল্প সময় খেলায়। প্রস্তুতি ম্যাচে চামোরোর খেলা খুবই সাদামাটা। একটা সময় জুনিয়র ফুটবলারের সঙ্গে শোল্ডার চার্জে পড়ে গিয়ে চামোরো মাটিতে পড়ে উঠতেই চাইছিলেন না। কনুইয়ে চোট পেয়ে বসে যাচ্ছিলেন। বাগান কোচ ভিকুনা এতে খুশি হননি। একপ্রকার জোর করেই তাঁকে ফের খেলায় ফেরত পাঠান। অনুশীলন দেখতে হাজির থাকা প্রতিনিধিদের মাধ্যমে চামোরোর এই আচরণ শীর্ষ কর্তাদের কানে যাবে বলাই বাহুল্য। চামোরোর পারফরমেন্সে উন্নতি না ঘটলে ছাঁটাই হওয়া সময়ের অপেক্ষা।
পাশাপাশি আইজলে ম্যাচ না জেতার জন্য রবিবারের চার্চিল ম্যাচের আগে কোচ ভিকুনার সঙ্গে আলোচনায় বসবেন বাগান কর্তারা। কোচের ব্যাখ্যা চাইবেন আশানুরূপ পারফরমেন্স না হওয়ায়।‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top