Mohun Bagan: তাসখন্দে প্র্যাকটিসে নেমে পড়ল এটিকে মোহনবাগান, ১২০ মিনিটের জন্য তৈরি প্রীতমরা

আজকাল ওয়েবডেস্ক: তাসখন্দে চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু করে দিলেন রয় কৃষ্ণারা। বিমান দেরিতে ছাড়ায় রবিবার রাতে নির্ধারিত সময়ের প্রায় দু'ঘন্টা পর উজবেকিস্তানে পৌঁছয় এটিকে মোহনবাগান। দুবাইয়ের সঙ্গে তাসখন্দের তাপমাত্রায় বিস্তর পার্থক্য। দিনের বেলায় গরম। সন্ধ্যায় ঠান্ডা। রাতে শীতের আমেজ। দুবাইয়ের গরম থেকে গিয়ে মনোরম আবহাওয়া পেয়ে খুশি এটিকে মোহনবাগানের ফুটবলাররা। উজবেকিস্তান পৌঁছেই প্রস্তুতিতে নেমে পড়লেন রয় কৃষ, উইলিয়ামসরা। 

সোমবার সন্ধ্যায় কার্শি স্টেডিয়াম সংলগ্ন মাঠে এএফসি কাপের আন্তঃঅঞ্চল সেমিফাইনালের প্রস্তুতি শুরু করে দিলেন হাবাস। তাসখন্দ থেকে বুলেট ট্রেনে কার্শি স্টেডিয়াম পৌঁছতে প্রায় ছ'ঘন্টা লাগে। বুধবার এই স্টেডিয়ামেই ম্যাচ। খেলার আগের দিন একঘন্টা মূল স্টেডিয়ামে প্রাক ম্যাচ প্রস্তুতি সারবে এটিকে মোহনবাগান। দুবাইয়ের শিবিরে উইং প্লেতেই জোর দিয়েছিলেন স্প্যানিশ কোচ। এফসি নাসাফের মতো শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে নক আউট ম্যাচ। তাই বাড়তি সতর্কতা সবুজ মেরুন শিবিরে। 

উজবেক ক্লাবের মাঝমাঠ এবং উইং প্লে আটকাতে রক্ষণের ওপর নির্ভরশীল থাকবেন হাবাস। রক্ষণের অন্যতম প্রধান কান্ডারী প্রীতম কোটাল মনে করছেন, নাসাফের মাঝমাঠ ও উইং প্লে আটকাতে পারলে সুযোগ থাকবে বাগানের। প্রীতম মূলত রাইট ব্যাক। কিন্তু সন্দেশ চলে যাওয়ায় সেন্টার ব্যাক হিসেবেও খেলতে হচ্ছে। তাতে কোনও সমস্যা নেই বাঙালি ডিফেন্ডারের। দলের স্বার্থে যেকোনও পজিশনে খেলতে তৈরি প্রীতম। শুরুতে নিজেদের রক্ষণ সামলে আক্রমণে যাবে রয় কৃষ্ণ, উইলিয়ামসরা। ১২০ মিনিট খেলার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত প্রীতমরা।