আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আর বিপাকে ভারতীয় দলের ক্রিকেটার মহম্মদ সামি। বাদ পড়লেন বিসিসিআইয়ের চুক্তি থেকে। থাকলেন না এ প্লাস, এ  কিংবা বি গ্রেডে। এমনকি জায়গা পাননি অন্যান্য গ্রেডে। বুধবার বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে প্রকাশিত চুক্তির তালিকায় দেখা যায়, সেখানে সামির নাম নেই।এরপরই শুরু হয়েছে জল্পনা।স্ত্রীর বিস্ফোরক অভিযোগের কারণেই কি এভাবে চুক্তি থেকে বাদ পড়লেন মহম্মদ সামি? কারণ সবসময় ক্রিকেটারদের ভাবমূর্তি স্বচ্ছ রাখার পক্ষে বোর্ড। আর সেকারণেই কী বোর্ডের চুক্তি থেকে বাদ পড়লেন সামি?‌ উঠছে প্রশ্ন। এদিকে, স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে লালবাজারে গেলেন মহম্মদ সামির স্ত্রী হাসিনা জাহান। ‌বুধবার আইনজীবীকে সঙ্গে নিয়েই থানায় গেলেন তিনি। ক্রিকেটারের নামে দায়ের করলেন অভিযোগ। অভিযোগে জানালেন, সামির বিবাহ–বহির্ভূত সম্পর্ক থেকে শুরু করে মারধর, মানসিক নির্যাতনের কথাও। এর আগে মঙ্গলবার দুপুর নাগাদ ফেসবুকে একটি পোস্ট করেছিলেন সামির স্ত্রী। এক অন্য নারীর সঙ্গে সামির কথোপকথন নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে তুলে ধরেন হাসিন। যা রীতিমতো শোরগোল ফেলে দেয়। যদিও বুধবার পাল্টা পোস্ট করে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন জাতীয় দলের এই তারকা ক্রিকেটার। লেখেন, ‘‌এগুলির কোনওটাই সত্যি নয়, তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ আনা হচ্ছে। তাঁর খেলা নষ্ট করার জন্য এই কাজ করা হয়েছে।’ 
এদিকে, মঙ্গলবার রাতে সামির স্ত্রী হাসিন জাহানের আইনি উপদেষ্টা আইনজীবী জাকির হোসেনের সঙ্গে কথা হওয়ার সময় জানা গেল আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য। আইনজীবী জাকির হোসেন ‘আজকাল’–কে জানান, ‘সামি মঙ্গলবার সন্ধেবেলায় স্ত্রী হাসিনকে ফোন করে বলেছে, সে বিয়ে করেছে এক পাকিস্তানি মেয়েকে। যা হাসিনের মোবাইলে রেকর্ড রয়েছে। কতটা বাজে মানুষ হতে পারে সামি তা বাইরের কেউ জানেন না। সত্যি, হাসিন মানসিক কষ্টের মধ্যে রয়েছে। ওদের ছোট্ট একটা ফুটফুটে বাচ্চা রয়েছে। তার ভবিষ্যতের কথা মাথায় রাখেনি।’ আরও বেশি রাতে সামির স্ত্রী হাসিন জাহান পরিষ্কার করে দিলেন চিত্রটা। ‘হ্যঁা, আমাকে বলেছে ও ইতিমধ্যেই অন্য একটা মেয়েকে বিয়ে করেছে। গত দু’বছর ধরে সামি আমাকে অকথ্য নির্যাতন করেছে। রীতিমতো মেয়ের সামনে আমাকে মারধর করত। মেয়ের প্রতি একটুও টান ছিল না। আমাকে সমানে বলে যেত বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে যেতে। এ বছরের গোড়ায় আমি উত্তরপ্রদেশে সামির বাড়ি গিয়েছিলাম। সেখানেও সামির পরিবারের কাছ থেকে আমাকে খুন করে দেওয়ার হুমকি পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে। আমি গত দু’বছর ধরে যে মানসিক ও শারীরিক যন্ত্রণার মধ্যে গেছি তা বলার নয়। ওর জন্যই আমি আমার কেরিয়ার ছেড়ে দিয়েছিলাম এককথায়। আর বিনিময়ে কী দিল আমাকে!’ হাসিনের আরও অভিযোগ, ‘জানেন, মঙ্গলবার রাতে সামি আমাকে ফোন করে বলেছে, আমাকে মেরে ফেলবে, আমি যদি বাইরে মুখ খুলি। দিনের পর দিন আর এই অত্যাচার সহ্য করতে পারিনি। তাই মুখ খুলেছি সোশ্যাল মিডিয়ায়। বাইরের জগৎকে দেখাতে চেয়েছি সামির ভয়ঙ্কর রূপ। কী আর বলব, ওর বিএমডব্লু থেকে কন্ডোম পর্যন্ত পেয়েছি। গত দু’বছর ধরে ওকে বলে গেছি এগুলো না করতে। সংসারের কথা ভেবে, মেয়েটার কথা ভেবে বলেছি, প্লিজ এ সব বন্ধ করো। না, সামি শোনেনি। উল্টে আমাকে মেরেছে। এগুলো হঠাৎ যেন বেড়ে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফেরার পর। একটা কথাও শুনত না। রোজ অশান্তি করত নিজে থেকেই। আর ওকে মদত দিয়েছে ওর পরিবার। দোলের আগের দিন বাড়ি ছেড়ে গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে যেতে চেয়েছিল। আমি কোনওরকমে আটকাই। দিনের পর দিন অসভ্যতা করে গেছে। জানেন, ওর প্রতিটি রাজ্যে একাধিক মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে। ধরমশালা যাওয়ার আগেও চূড়ান্ত নোংরামি করেছে আমার সঙ্গে। আমি জানতামই না সামি অন্য একটা মোবাই‍ল ব্যবহার করে। আমি ওর গাড়ির ড্রাইভিং সিটের তলা থেকে খুঁজে পেয়েছি। সেটা কোনওরকমে আনলক করার পরই সব বেরিয়ে আসে আমার কাছে। সত্যি আমি এই লড়াই ছাড়ব না। আপনারা দয়া করে আমার পাশে থাকুন।’ কথা যেন শেষ হয় না হাসিনের। ‘আমাকে বলত পুলিস দিয়ে মেরে বার করে দেবে বাড়ি থেকে। আমি তখন ওকে বলতাম এটা উত্তরপ্রদেশ নয়। এটা কলকাতা। অত সহজে ছাড় পাওয়া যাবে না।’‌‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top