আজকালের প্রতিবেদন: চেন্নাইয়ের জয়ে হোলি–উৎসব পালন ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের।
নাটকীয়তায় ঠাসা রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ। ম্যাচের পর সাইড লাইনে দঁাড়িয়ে মাথায় হাত হতাশ মিনার্ভা কোচ খোগেন সিং। দু’‌হাত দিয়ে মুখ ঢেকে মাথা নীচু করে রিজার্ভ বেঞ্চে বসেছিলেন মালিক রঞ্জিত বাজাজ। তঁারা বিশ্বাস করতে পারছিলেন না, কীভাবে ম্যাচটা হেরে গেলেন। চেন্নাইয়ের কাছে ১–২ হেরে গিয়ে মিনার্ভা লিগ জমিয়ে দিল, সেইসঙ্গে নিজেদের লিগ জেতার রাস্তা কঠিন করে তুলল নিজেরাই।
ম্যাচের শুরুতেই ছন্দপতন মিনার্ভার। ম্যাচের ৫ মিনিটে গোল করে চেন্নাইকে এগিয়ে দেন মাইকেল সুসাইরাজ। কিন্তু, ২৬ মিনিটে গোল করে মিনার্ভার হয়ে সমতা ফেরান চেঞ্চো। তবে, দিনটা মিনার্ভার ছিল না। ৩০ মিনিটে আকাশদীপের শট বারে লেগে ফেরে। আরও কয়েকটা সুযোগ নষ্ট করে তারা। ৬০ মিনিটে র‌্যাকিচ জয়সূচক গোল করেন। তঁার একটি শট গোল লাইন সেভ করেন সুখদেব। চেন্নাইয়ের সুসাইরাজ এ দিন দুরন্ত ফুটবল খেলেন। ম্যাচের সেরাও তিনিই হন।
মিনার্ভা কোচ খোগেন সিং জিততে না পেরে রেফারিকে দুষেছেন। বলেছেন, ‘টিমের কোনও ভুল নেই। রেফারির জন্য ম্যাচটা জিততে পারলাম না। ওদের দ্বিতীয় গোলটা অফ সাইডে হয়েছে বলে মনে করি। সেকেন্ড হাফে চেঞ্চোকে বক্সের মধ্যে ফাউল করল, ওটা পেনাল্টি পেতে পারতাম।’ তবে, মিনার্ভা কোচ লিগ জয়ের ব্যাপারে এখনও আশাবাদী। ‘লাজং ম্যাচটা ইস্টবেঙ্গলের কাছে কঠিন না হলেও নেরোকা ম্যাচ জেতা সহজ হবে না। লাজং রেলিগেশন বাঁচিয়ে নিয়েছে। ওদের ম্যাচ জেতার মোটিভেশন নেই। কিন্তু, নেরোকা লিগ জিততে ছেড়ে কথা বলবে না। লিগ জেতার ব্যাপারে আমরা এখনও আশাবাদী। মনে করি, আজকের ম্যাচের পরও ইস্টবেঙ্গল কোনও সুবিধেজনক জায়াগায় নেই।’ ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top