সংবাদ সংস্থা, প্যারিস: চমকটা দেখা গিয়েছিল মাস দুয়েক আগে ফিফা বর্ষসেরা খেতাবের মঞ্চেই। গোটা বিশ্ব যখন লিভারপুলের ডিফেন্ডার ভার্জিল ভ্যান ডিকের হাতেই ট্রফি উঠবে মনে করছে, তখন সবাইকে চমকে দিয়ে সেই পুরস্কার ছিনিয়ে নিয়ে যান লিওনেল মেসি। সোমবার রাতে প্যারিসের থিয়েটার দ্যু শাঁতেলেতে ব্যালন ডি’‌ওরের মঞ্চেও দৃশ্যপটের পরিবর্তন হবে বলে মনে করছেন না ফুটবল–পণ্ডিতরা। অর্থাৎ, আর্জেন্টিনীয় তারকার হাতেই ষষ্ঠবারের মতো এই পুরস্কার ওঠার সম্ভাবনা রয়েছে। দেশকে বিশ্বকাপ জেতানোর সুবাদে আমেরিকার ফুটবল দলের অধিনায়ক মেগান র‌্যাপিনোর হাতেও উঠতে পারে ব্যালন ডি’‌ওর।
টুইটারে ইতিমধ্যেই ফলাফল ‘‌লিক’‌ হয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। দেখা গিয়েছে, ৪৪৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন মেসি। ৩৮২ পয়েন্টে দ্বিতীয় ভ্যান ডিক। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোকে টপকে তৃতীয় মহম্মদ সালা (‌১৭৯)‌। রোনাল্ডো চতুর্থ (‌১৩৩)‌। প্রতিবারই এরকম গুজব ছড়ায়, যা কোনও কোনও সময় মিলেও যায়।
তবে যাবতীয় আলোচনা আবর্তিত হচ্ছে সেই মেসি–রোনাল্ডোকে ঘিরেই। বার্সিলোনার কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে সরাসরি মুখ খুলেছেন মেসির হয়ে। বলেছেন, ‘‌এইসব পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানগুলো অনেকক্ষণ ধরে চলে বলে আমি দেখি না। আমার ভোট কোথায় পড়বে আপনারা সবাই জানেন। দুনিয়ার সেরা ফুটবলারকেই আমি ভোট দিয়েছি। এটা ঠিকই যে, গত মরশুম কীরকম গিয়েছে সেটার ওপর ভিত্তি করেই ভোটিং হয়। কিন্তু সেরা খেলোয়াড়কে এই পুরস্কার দিতে চাইলে সোজা মেসিকে দিয়ে দিন। সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।’‌
ঠিক উল্টো কথা বলেছেন জুভেন্টাসের কোচ মরিসিও সারি। তাঁর কথায়, ‘‌ক্রিশ্চিয়ানো গত মরশুমে ভাল খেলেছে। ওর দক্ষতা দিন দিন বাড়ছে। আশা করি ব্যালন ডি’‌ওর ও–ই পাবে। পাওলো ডিবালাকেও আমি ভবিষ্যতে ব্যালন ডি’‌ওর হাতে দেখতে চাই।’‌ তবে মেসির এই পুরস্কার পাওয়ার বিরোধিতা করেছেন প্রাক্তন লিভারপুল অধিনায়ক স্টিভেন জেরার্ড। তাঁর ভোট ভ্যান ডিকের দিকেই। বলেছেন, ‘‌আমি যে মেসির এক নম্বর সমর্থক সেটা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু এক বছর ধরে একটা ফুটবলারের ধারাবাহিকতাকে যদি দেখা হয় তাহলে যে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছে এবং প্রতিটা ম্যাচে নিখুঁত পারফরমেন্স করেছে, তাঁকেই এই পুরস্কার দেওয়া উচিত।’‌ একই কথা লিভারপুল কোচ জুরগেন ক্লপেরও। বলেছেন, ‘‌যদি এই প্রজন্মের সেরা ফুটবলারকে পুরস্কার দিতে চান তাহলে এক নম্বরে মেসির নাম থাকবে। তবে গত মরশুমের সেরা খেলোয়াড়ের নাম যদি বলেন, আমি ভ্যান ডিকের কথাই বলব।’‌
ভ্যান ডিক নিজে অবশ্য জল্পনা উসকে দিয়েছেন। বলেছেন, ‘‌গতবার লিভারপুলের হয়ে যা অর্জন করেছি তাতে আমি খুশি। নিশ্চয়ই একটা কারণে আমি ওখানে যাব। দেখা যাব এবার কী হয়।’‌‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top