আজকালের প্রতিবেদন: অ্যাশেজ হাতছাড়া ভয় নেই। আশঙ্কা নেই সিরিজ হারানোরও। সামনে ইংল্যান্ড থেকে সিরিজ জিতে ফেরার হাতছানি। এই পরিস্থিতিতে যে সব ব্যাটসম্যান সিরিজে এখনও রান পাননি, অ্যাশেজের শেষ টেস্টে তাঁদের দায়িত্ব নেওয়ার কথা বললেন অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার।
বৃহস্পতিবার ওভালে শুরু হবে অ্যাশেজের পঞ্চম টেস্ট। এই মুহূর্তে সিরিজে ২–১ ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ২০০১ সালের পর ইংল্যান্ড থেকে সিরিজ জিতে ফেরেনি অস্ট্রেলিয়া। সে বছর স্টিভ ওয়ার দল ৪–১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছিল। ১৮ বছর পর ইংল্যান্ড থেকে সিরিজ জিতে ফেরার সুযোগ টিম পেইনের দলের সামনে। সিরিজ জিততে গেলে ব্যাটসম্যানদের বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে, সে কথা বিলক্ষণ জানেন কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার।
বিশ্বকাপের দুর্দান্ত সাফল্যের পর ডেভিড ওয়ার্নারের ওপর বেশি প্রত্যাশা করেছিল অসি শিবির। ভরসা করেছিল উসমান খোয়াজার ওপরেও। এই দুই ব্যাটসম্যান চূড়ান্ত ব্যর্থ। ব্যর্থতার তালিকাটা আরও দীর্ঘ। রয়েছে ম্যাথু ওয়েড, মার্কাস হ্যারিস, ক্যামেরন ব্যানক্রফটের নাম। সবথেকে খারাপ অবস্থা ওয়ার্নারের। গড় ৯.‌৮৭। সফল বলতে স্টিভ স্মিথ ও মার্নাস লাবুশানে।
সিরিজের শেষ টেস্ট সহজ হবে না, জানেন ল্যাঙ্গার। সমতা ফেরানোর জন্য ইংল্যান্ড মরিয়া হয়ে উঠবে। এই অবস্থায় ব্যাটসম্যানদের নিজেদের মেলে ধরার কথা বলেছেন অসি কোচ। ল্যাঙ্গার বলেন, ‘‌অ্যাশেজ জয় পার্থক্য গড়ে দেবে কি না, সেটা সময়ই বলবে। তরুণ কিংবা অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান, যেই হোক না কেন, নিজেদের মেলে ধরার সময় এসেছে। বাড়তি দায়িত্ব নিয়ে সবাইকে পারফর্ম করতে হবে।’‌ তরুণ ব্যাটসম্যানদের ধৈর্য দেখানের কথা বলেছেন ল্যাঙ্গার। স্মিথের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‘‌গত কয়েক বছরে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের জন্য স্মিথ অনেক কিছু করেছে। ওয়ার্নারও কম করেনি। হেড, লাবুশানে, হ্যারিস, ব্যানক্রফটরা টেস্ট ক্রিকেটে নতুন। ওদের কাছ থেকে এখনই বেশি অভিজ্ঞতা প্রত্যাশা করা ঠিক হবে না। অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য সময় দিতে হবে। স্মিথের কাছে গোটা দল কৃতজ্ঞ। আমরা ভাগ্যবান যে, ওর মতো ব্যাটসম্যান পেয়েছি। তরুণদের ওকে দেখে শিখতে হবে।’‌ ব্যাটিং নিয়ে সমস্যা থাকলেও বোলিং নিয়ে কোনও সমস্যা নেই ল্যাঙ্গারের।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top