মিল্টন সেন- যে স্বপ্ন নিয়ে কলকাতা ছেড়েছিল, সেই স্বপ্ন পূরণ করেই আজ আবার কলকাতায় ফিরছে সে। ঈশান পোড়েল। ভারতের অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলের গর্বিত সদস্য। সোমবারই নিউজিল্যান্ড থেকে পৃথ্বী ব্রিগেড দেশে ফিরেছে। আজ মুম্বই থেকে কলকাতা ফিরছে ঈশান। বেলা এগারোটায় দমদম বিমানবন্দরে তার নামার কথা। কাল চন্দননগরে ফিরবে ঈশান। তাকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত চন্দননগর। ফুলের মালা, ব্যান্ড, বাজনা, আবির, হুডখোলা জিপ, ঈশানের ছবি দিয়ে বানানো নতুন ব্যানার, ভারতের পতাকা— আরও কত কী!‌ কাল কলকাতা থেকে ঈশানকে রাজকীয় সম্মানের সঙ্গে নিয়ে আসা হবে চন্দননগরে। একযোগে প্রস্তুত রথের সড়ক বারোয়ারির সব বাসিন্দাই। পাশাপাশি প্রস্তুত চন্দননগর কমিশনারেট। ঈশানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার অজয় কুমার। জানিয়েছেন, ঈশানের চন্দননগর ফেরা উপলক্ষ্যে বিপুল উন্মাদনা তৈরি হবে। তাই পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশি ব্যবস্থা রাখা হবে।    
ফাইনালের আগে একটানা রাত জেগে পুজো দিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন মা রিতা পোড়েল। ডাক্তার সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে বলেছেন। সোমবার অসুস্থ রিতাদেবী জানিয়েছেন, ছেলে বাড়ি ফিরলেই অসুস্থতা কেটে যাবে। বললেন, ‘‌ঈশান আমার হাতের রান্না খেতে খুব পছন্দ করে। বাড়িতে ফিরে যা খেতে চাইবে তাই রান্না করে দেব।’‌ সঙ্গে সংযোজন, ‘‌এলাকার বাসিন্দা থেকে শুরু করে চন্দননগর এবং জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে মানুষ বাড়িতে এসে ফুলের স্তবক দিয়ে ধন্যবাদ জানিয়ে গেছেন। সবাই খোঁজ নিচ্ছে, খুব ভালো লাগছে। দূর–দূরান্ত থেকে আত্মীয় স্বজনেরা ঘন ঘন ফোনে ঈশানের খোঁজ নিচ্ছেন। যাদের সঙ্গে বহুকাল যোগাযোগ ছিল না তারাও খোঁজ নিচ্ছেন, বাড়িতে আসছেন, একইসঙ্গে ধন্যবাদও  জানাচ্ছেন। খুব ভালো লাগছে।’‌   
বাবা চন্দ্রনাথ পোড়েল বলেন, ‘‌ছেলের কীর্তিতে এক ঝটকায় আমার পরিচয়টাই পাল্টে গেলো। আগে ঈশানের পরিচয় ছিল চন্দ্রনাথবাবুর ছেলে বলেই। এখন সবার কাছে আমার একটাই পরিচয়, আমি ঈশানের বাবা। গর্বে বুক ফুলে গেছে।’‌ পাড়া–পড়শি, বাবা চন্দ্রনাথ পোড়েলের সঙ্গে ঈশানকে আনতে কাল কলকাতা যাবেন কোচ বিভাস দাস ও প্রদীপ মণ্ডলও।                 
‘‌ঈশানকে অভিনন্দন। ও শুধু চন্দননগরের নয়, বাংলা এবং ভারতের গর্ব। আগামীদিনে ও আরও সাফল্য পাক’‌, সোমবার উত্তরবঙ্গ থেকে ফোনে ঈশান সম্পর্কে এই মন্তব্য করেন মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন। জানালেন, তাঁর সঙ্গে ঈশানের কথা হয়েছে। বিশ্বকাপ জেতার খবর পাওয়া মাত্রই তিনি ঈশানকে শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। কালই মহাসাড়ম্বরে ঈশানকে চন্দননগর স্ট্যান্ডে নাগরিক সংবর্ধনা দেওয়া হবে চন্দননগর পুরনিগমের তরফে।
‘‌বিশ্বের দরবারে চন্দননগরের সম্মান বাড়িয়েছে ঈশান। চন্দননগরবাসী হিসেবে আমরা গর্বিত’‌, মন্তব্য চন্দননগরের মেয়র রাম চক্রবর্তীর। তিনি বলেন, ভারতীয় দলে নাম ঘোষণা হওয়ার খবর পাওয়া মাত্রই ঈশানকে পুরনিগমের তরফে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছিল। বিশ্বকাপ জেতার পর ঈশানের বাবা চন্দ্রনাথবাবুকে তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন।‌

মুম্বইয়ে ফিরে টিম বাসে ঈশান। ছবি:‌ পিটিআই
 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top