আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ কেন্দ্রীয় সরকারের চূড়ান্ত সম্মতিটুকুই শুধু বাকি। বাকি সব ফাইনাল হয়েই গেছে। এবার আইপিএলের আসর বসছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে। মেগা ইভেন্ট শুরু হবে ১৯ সেপ্টেম্বর। ফাইনাল ৮ কিংবা ১০ নভেম্বর। কাল অর্থাৎ রবিবার আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে সূচি সহ বাকি বিষয় চূড়ান্ত হওয়ার কথা। আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল জানিয়ে দিয়েছেন, আইপিএল হবে দুবাই, শারজা ও আবুধাবিতে। আট ফ্রাঞ্চাইজির কাছেই কালকের বৈঠকের পর সবকিছু পরিষ্কার হয়ে যাবে। 
সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্য। যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনেই আয়োজন করা হবে আইপিএল। জানা যাচ্ছে আট ফ্রাঞ্চাইজি প্রতিনিধি পাঠিয়ে আমিরশাহির যাবতীয় সুরক্ষা বলয় খুঁটিয়ে দেখবে। ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা ছাড়াও বাকি কি কি বিষয় থাকতে পারে তা একবার দেখে নেওয়া যাক।
১.‌ কোয়ারেন্টিন বিধি:‌ দুবাইয়ের বর্তমান স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী, কোভিড নেভেটিভ রিপোর্ট দেখাতে পারলে কোয়ারেন্টিনে থাকার দরকার নেই। কিন্তু রিপোর্ট না থাকলে টেস্ট করাতেই হবে।
২.‌ কোভিড টেস্ট:‌ ক্রিকেটারদের দেশ ছাড়ার আগে দু’‌বার করোনা টেস্ট হবে। দুবাই পৌঁছানোর পর আরও দুবার টেস্ট করা হবে। ক্রিকেটার ছাড়াও, সাপোর্ট স্টাফ ও অন্যান্যদের রিপোর্টও বাধ্যতামূলক।
৩.‌ জৈব সুরক্ষা বলয়:‌ প্রতিটি ফ্রাঞ্চাইজিকে তাঁদের ক্রিকেটারদের জন্য জৈব সুরক্ষা বলয় তৈরি করতে হবে। সীমিত সংখ্যক ব্যক্তি ছাড়া কারও সঙ্গে দেখা বা কথা বলা নিষিদ্ধ।
৪.‌ ডিএক্সবি অ্যাপ:‌ যারা আইপিএল খেলতে আমিরশাহি যাবেন, প্রত্যেককে ফোনে এই অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। এটা আরোগ্য সেতু অ্যাপের মতোই। যেখানে সামাজিক দূরত্বের বিধি ছাড়াও যাবতীয় নিয়ম দেওয়া থাকবে।
৫.‌ থাকা ও খাওয়া:‌ ফ্রাঞ্চাইজিগুলিকে নিজেদেরই হোটেলের ব্যবস্থা করতে হবে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড এক্ষেত্রে ফ্রাঞ্চাইজিগুলিকে সাহায্য করবে। কোন হোটেলে কতটা ছাড় পাওয়া যাবে, তা বোর্ডই জানিয়ে দেবে ফ্রাঞ্চাইজিগুলিকে। 
৬.‌ ড্রেসিংরুম বিধি:‌ ড্রেসিংরুমে একসঙ্গে ১৫ জনের বেশি ক্রিকেটারের থাকা চলবে না। 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top