তরুণ চক্রবর্তী: নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে দীপা কর্মকারের রাজ্যে বাসা বেঁধেছে ১৭ বছরের প্রতিষ্ঠা সামন্ত। হাওড়ার সাঁতরাগাছির বাসিন্দা প্রতিষ্ঠার মধ্যে দীপার উত্তরসূরি হওয়ার সম্ভাবনাও উজ্জ্বল বলে দাবি দীপার ‘দ্রোণাচার্য’ কোচ বিশ্বেশ্বর নন্দীর। আগরতলায় নেতাজি সুভাষ আঞ্চলিক ক্রীড়াকেন্দ্রে দীপার সঙ্গেই অনুশীলন করছে প্রতিষ্ঠা। তার মতোই তালিম নিচ্ছে অস্মিতা পাল, প্রিয়াঙ্কা দাশগুপ্ত। ওই তিনজনকে নিয়েই স্বপ্ন বিশ্বেশ্বরের। সঙ্গে দীপার কামব্যাক।
দীপার কল্যাণে আগরতলার জিমন্যাস্টিক পরিকাঠামো এখন আন্তর্জাতিক মানের। বিশ্বশ্বরের দাবি, গোটা দেশে এত ভাল পরিকাঠামো আর নেই। তাই রেলের জিমন্যাস্টদেরও অনুশীলন চলছে ত্রিপুরায়। বাংলার প্রতিষ্ঠাকে প্রতিষ্ঠিত করতে নতুন লড়াই শুরু করেছেন বিশ্বেশ্বর। প্রতিষ্ঠা আগরতলা নেতাজি শিক্ষা নিকেতনে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হয়েছে। পড়াশোনাও চালিয়ে যাচ্ছে। তবে মন ভল্টে। দীপাও দিচ্ছেন প্রয়োজনীয় টিপস। 
প্রতিষ্ঠা খুশি ভাল কোচ এবং ভাল পরিবেশ পেয়ে। কোচের পরামর্শই তার কাছে ধ্যানজ্ঞান। আর কোচ বলছেন, ‘প্রতিষ্ঠা খুব ভাল মেয়ে। ত্রিপুরার অস্মিতা পাল আর প্রিয়াঙ্কা দাশগুপ্তের মতো প্রতিষ্ঠার মধ্যেও প্রতিভা রয়েছে।’ তবে প্রতিষ্ঠা ‘দীপা’ হতে পারবে কিনা, তা নিয়ে কোনও মন্তব্যে নারাজ বিশ্বেশ্বর। শুধু বলছেন, ‘৩ জনই চেষ্টা করলে অনেক বড় হতে পারবে। বাকিটা বলবে ভবিষ্যৎ।’ 
চোট-আঘাত সামলে দীপাও আবার ফিরে এসেছেন অনুশীলনে। হাওড়ার প্রতিষ্ঠা আর ত্রিপুরার ৩ কন্যাকে নিয়ে জিমন্যাস্টিকের আন্তর্জাতিক আসরে ভারতের আরও সাফল্যের পিছু ধাওয়া করছেন ‘দ্রোণাচার্য’ বিশ্বেশ্বর। 

বিশ্বেশ্বর নন্দীর সঙ্গে প্রতিষ্ঠা। ছবি: আজকাল

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top