Pujo Football: পুজো ফুটবলে তারকার সমাহার, উৎসব পৌঁছে গেল মার্কিন মুলুকেও

আজকাল ওয়েবডেস্ক: এক ছাদের নীচে তারকার সমাহার। রাজনীতি, চলচ্চিত্র, ক্রীড়া- সব মিলে মিশে একাকার। শুক্রবার সন্ধেয় দেশপ্রিয় পার্কে রমরমিয়ে হল পুজো ফুটবলের ফাইনাল। প্রাক্তন আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখার্জির উদ্যোগে তিনদিনের জমাটে ফুটবল কার্নিভাল শেষ হল গ্র্যান্ড ফিনালের মাধ্যমে। দেশপ্রিয় পার্কে চাঁদের হাট। ফাইনালে বিশেষে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক দেবাশিস কুমার এবং তারকা অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। এছাড়াও ছিলেন বিওএর সভাপতি স্বপন ব্যানার্জি, প্রাক্তন আইএফএ সচিব উৎপল গাঙ্গুলি, আইএফএর দুই সহ সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস ও সৌরভ পাল, প্রাক্তন ফুটবলার প্রশান্ত ব্যানার্জি এবং জনপ্রিয় টিভি সিরিয়াল মিঠাই-এর অভিনেতারা।

বাংলার গণ্ডি পেরিয়ে এই পুজো ফুটবল পৌঁছে গেল মার্কিন মুলুকেও। তিনদিনব্যাপী টুর্নামেন্টের ফাইনালে উপস্থিত ছিলেন কলকাতায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কনসাল জেনারেল মেলিন্ডা পাভেক। ম্যাচ শুরুর আগে প্রাক্তন ফুটবলারদের সঙ্গে পরিচিত হন। বাংলার তথা কলকাতার সংস্কৃতিতে মুগ্ধ তিনি। একবছর ধরে কলকাতার থাকলেও কোনও ফুটবল ম্যাচ দেখা হয়নি। এদিন পুজো দেখতে এসে বাঙালির শ্রেষ্ঠ খেলার সাক্ষী থাকতে পেরে উল্লসিত। মেলিন্ডা পাভেক বলেন, 'এই উৎসবে সামিল হতে পেরে দারুণ লাগছে। খেলা দেখতে আমি ভালবাসি। পুজো দেখতে এসে ফুটবল ম্যাচ দেখা আমার কাছে উপরি পাওনা। কলকাতার মানুষের উষ্ণতা, আন্তরিকতা এবং বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণে আমি মুগ্ধ।

কলকাতা সংস্কৃতির পীঠস্থান। শৈল্পিক শহর। পুজো তারই প্রদর্শন। আজ জানলাম ক্রীড়াক্ষেত্রেও কলকাতা সমানভাবে এগিয়ে।' 

মাঠে ফুটবল, ব্যাকগ্রাউন্ডে ঢাকের তাল। চারিদিকে আলোর রোশনাই। প্রকৃত অর্থে ফুটবল উৎসব। টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সংস্করণেও সামিল হতে পেরে খুশি টলিউডের তারকা। ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত বলেন, 'ফুটবলের সঙ্গে ঢাকের তাল। দারুণ পরিবেশ। এই ফুটবল উৎসবের জন্য যেন পুজো এক সপ্তাহ এগিয়ে এসেছে। ফুটবল শক্তির খেলা। দেবী দুর্গার সঙ্গেও নারীশক্তির সম্পর্ক রয়েছে। তাই দুইয়ের মেলবন্ধন আলাদা মাত্রা যুক্ত করেছে।' আগামী দিনে এই টুর্নামেন্টের আরও সাফল্য কামনা করলেন বিধায়ক দেবাশিস কুমার। তিনি বলেন, 'পুজো ফুটবল ইতিমধ্যেই কলকাতা শহরের আলোচিত টুর্নামেন্ট হয়ে গিয়েছে। পুজোকে কেন্দ্র করে ফুটবল এর আগে হয়নি। ১০০ র বেশি ক্লাব খেলতে চাইছে। বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসবের সঙ্গে সেরা খেলার মেলবন্ধন ঘটেছে। দু'বছর পর আমরা করোনা থেকে মুক্তি পেয়েছি। তাই এই ফুটবল উৎসব আরও রঙিন হয়ে উঠেছে।'

পুজো ফুটবল 'গো ফর গোলস'এর ফাইনালে‌ টালা বারোয়ারিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় চতুষ্কোণ পার্ক। ফাইনালের আগে প্রাক্তনদের একটি বিশেষ ম্যাচ আয়োজিত হয়। বল পায়ে মাঠে দেখা যায় মানস ভট্টাচার্য, আলোক মুখার্জি, কৃষ্ণেন্দু রায়, অতনু ভট্টাচার্য, সঞ্জয় মাঝি, রহিম নবি, মেহতাব হোসেন, দীপঙ্কর রায়, অর্ণব মণ্ডলদের। পরের বছর এই পুজো ফুটবল আরও বড় আকারে করতে চান প্রধান উদ্যোক্তা জয়দীপ মুখার্জি। ছড়িয়ে দিতে চান বিভিন্ন জেলাতেও। 

আকর্ষণীয় খবর