আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ স্বামীর বিরুদ্ধে গার্হস্থ্য হিংসা, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ তুললেন দেশের প্রাক্তন মহিলা হকি অধিনায়ক ওয়াইখোম সুরজ লতা দেবী। বুধবার ইম্ফলে এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি জানান, বিয়ের পর থেকেই তাঁর উপর নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে স্বামী শান্তা সিং। 
২০০৫ সালে বিয়ে হয় সুরজের। তারপর থেকেই যৌতুক নিয়ে নানাভাবে হেনস্থা করা হয়েছে সুরজকে। এমনই অভিযোগ প্রাক্তন হকি অধিনায়কের। তাঁর অভিযোগ, ‘‌বিয়ের পর আমার জেতা সমস্ত পদক ও খেলার স্মরণীয় মুহূর্তের ছবি নিয়ে শ্বশুরবাড়ি যাই। যা দেখে স্বামী জিজ্জাসা করে, এগুলো নিয়ে কী হবে?‌’‌ 
সুরজের অধিনায়কত্বে ২০০২ সালে কমনওয়েলথ গেমসে সোনা জিতেছিল ভারতীয় মহিলা হকি দল। সোনা এসেছিল ২০০৩ সালে আফ্রো এশিয়ান গেমস ও ২০০৪ সালে এশিয়া কাপ হকিতে। ২০০২ সালে কমনওয়েলথ গেমসে মহিলা হকি দল সোনা জেতার পরই সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে বিখ্যাত ছবি  ‘‌চক দে ইন্ডিয়া’‌ তৈরি হয়। সেই সুরজই এবার গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ তুললেন।
সুরজ জানিয়েছেন, তাঁর স্বামী নাকি অভিযোগ জানিয়েছিলেন, তিনি নাকি অর্জুন পুরস্কার নিজের যোগ্যতায় পাননি। এতদিন তিনি অত্যাচার সহ্য করেছেন এই ভেবে যে স্বামীর ব্যবহারে হয়ত বদল আসবে। কিন্তু তা হয়নি। সুরজের কথায়, ‘জনসমক্ষে এই কথা বলার ইচ্ছা কোনদিন ছিল না। কিন্তু সবারই একটা ধৈর্য্য ও সহ্যশক্তির সীমা থাকে।’
দুই সন্তানের মা সুরজ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেন ২০১৯ সালের নভেম্বরে। পাঞ্জাবের কাপুরথালায় একটি হকি টুর্নামেন্টের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। কিন্তু সেখান গিয়ে সুরজকে চূড়ান্ত অপমান করেন শান্তা, অভিযোগ এমনই। ইতিমধ্যেই এফআইআর দায়ের করেছেন সুরজ। শান্তার বিরুদ্ধে ৪৯৮(এ) ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top