দুই গোষ্ঠীর হাতাহাতিতে উত্তপ্ত ইস্টবেঙ্গল ক্লাব, পরিস্থিতি সামলাতে লাঠিচার্জ

আজকাল ওয়েবডেস্ক: ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্টের চুক্তিপত্রে অবিলম্বে সই করতে হবে কিংবা টার্মশিট আনতে হবে। তা না হলে চুক্তিপত্র সবার সামনে আনতে হবে। এই দাবিকে সামনে রেখে এদিন ইস্টবেঙ্গল ক্লাব তাঁবুতে বিক্ষোভে সামিল হলেন সমর্থকরা। বিক্ষোভরত সর্মথকদের দিকে চড়াও হলেন ক্লাবকর্তাদের অনুগামী ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা। যা থেকে বচসা এবং হাতাহাতি শুরু হয়ে যায় দু’‌পক্ষের মধ্যে। ক্লাব তাঁবুর সামনের রাস্তায় মারামারি শুরু হয়ে যায়। পরিস্থিতি সামলাতে ঘটনাস্থলে আসেন ডিসি সাউথ আকাশ মাঘেরিয়া। সমর্থকদের একাংশকে হঠাতে লাঠিচার্য করে পুলিশ বাহিনী। এখনও লেসলি ক্লডিয়াস সরণী সহ ইস্টবেঙ্গল ক্লাব তাঁবুতে রয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। প্রসঙ্গত, ইস্টবেঙ্গলের আইএসএল খেলা নিয়ে বাড়ছে সংশয়। এফএসডিএলের উদ্যোগে ইস্টবেঙ্গল এবং ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্টের মধ্যে যে দ্বন্দ্ব ছিল তা মেটানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছিল। এফএসডিএলের হস্তক্ষেপে দু’‌তরফের মধ্যেই জট অনেকটা কেটে গিয়েছিল। কিন্তু বেঁকে বসেছেন ইস্টবেঙ্গলের ক্লাব কর্তারা। শ্রী সিমেন্টের পাঠানো নয়া চুক্তিপত্রে সই করতে নারাজ ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের কার্যকরী কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে কিছুতেই শ্রী সিমেন্টের পাঠানো নয়া চুক্তিপত্রে সই করা হবে না। তাই আইএসএলের মতো বড় মঞ্চে এবার ইস্টবেঙ্গল আদৌ খেলতে পারবে কিনা তার উত্তর নেই ক্লাব কর্তাদের কাছে। শুধু আইএসএলই নয় ঐতিহ্যবাহী কলকাতা লিগেও ইস্টবেঙ্গলের খেলা নিয়ে সংশয় রয়েছে। ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ভবিষ্যৎ নিয়ে কিছুই বলতে চাইছেন না কর্তারা। কর্তারা মুখ খুলছেন না। ভারতবর্ষের অন্যতম সেরা ক্লাব ইস্টবেঙ্গল জুড়ে এখন শুধুই অন্ধকার। ময়দানের আরেক প্রধান এটিকে মোহনবাগান যখন একের পর এক সেরা ফুটবলারদের সই করিয়ে ঘর গুছিয়ে নিচ্ছে তখন ইস্টবেঙ্গল জুড়ে শুধুই হতাশা। ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কর্তাদের যুক্তি, শ্রী সিমেন্টের নতুন চুক্তিপত্র পড়ে দেখা হয়েছে। নতুন চুক্তিপত্রে যে শর্তগুলি রয়েছে তা পুরনো চুক্তিপত্রর শর্তর থেকেও ভয়ঙ্কর। তাই এই নয়া চুক্তিপত্রে সই করার ইচ্ছে নেই।
উল্লেখ্য, আগস্টেই শুরু হতে চলেছে কলকাতা লিগ। অথচ ইস্টবেঙ্গল এখনও পর্যন্ত কোনও ফুটবলার সই করাতে পারেনি। শ্রী সিমেন্টের পাঠানো নতুন চুক্তিপত্র সই না করলে ইস্টবেঙ্গল কলকাতা লিগ, আইএসএল ছাড়াও কোনও টুর্নামেন্টেই নামতে পারবে না। শ্রী সিমেন্টের সঙ্গে বিবাদ না মেটালে, চুক্তিপত্রে সই না করলে এই মরসুম ছাড়াও বাকি মরসুম গুলিও ইস্টবেঙ্গলকে না খেলেই কাটিয়ে দিতে হবে। ক্লাবের যাবতীয় স্পোর্টিং রাইটস শ্রী সিমেন্টের হাতে তুলে দিয়ে বসে আছে ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। তাই এখন যতক্ষণ না শ্রী সিমেন্টের সঙ্গে বিবাদ মিটছে ততক্ষণ ইস্টবেঙ্গল ক্লাব জুড়ে শুধুই অন্ধকার।