আজকালের প্রতিবেদন- সোমবারই শিলমোহর পড়ল ফেডারেশনের তরফে। ২৮ ফেব্রুয়ারি হতে চলেছে রিয়েল কাশ্মীর বনাম ইস্টবেঙ্গল ম্যাচ। দুপুর ২ থেকে। শ্রীনগরেই হবে েখলা। খারাপ আবহাওয়ার জন্য আই লিগের এই ম্যাচটি বাতিল হয়েছিল। ২৮ তারিখ ছাড়া অন্য কোনও দিন ম্যাচটা দেওয়া ফেডারেশনের পক্ষে চাপ ছিল, সূচি তাই বলছিল। এবং ইস্টবেঙ্গলের কাছে খবরও ছিল, ম্যাচটা ২৮ তারিখ হবে। সেইমতো কাশ্মীর ম্যাচের জন্য তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছিল আগেই। ইস্টবেঙ্গল কোচ আলেসান্দ্রো মেনেন্ডেজের নোটবুকে সেই ভাবেই পরিকল্পনা লেখা চলছে। কাশ্মীর ম্যাচটা পিছিয়ে যাওয়ায় সুবিধে হয়েছে, তা মেনে নিলেন ইস্টবেঙ্গল ডিফেন্ডার সালাম রঞ্জন সিং। বলেন, ‘কাশ্মীর ম্যাচ না পিছোলে আমাদের পরপর ম্যাচ খেলতে হত। যা সমস্যা হত। কিছুটা সময় পেয়ে গেলাম। এটাকে কাজে লাগাতে হবে। সামনের তিনটে হোম ম্যাচ থেকে আমাদের পাখির চোখ ৯ পয়েন্ট।’ 
আপাতত, ইস্টবেঙ্গলের সামনে এখন লাজং বাধা। পাহাড়ি দলটার গতি নিয়ে ফুটবলারদের সতর্ক করে দিয়েছেন আলেসান্দ্রো। তবে, কঁাটা দিয়ে কাঁটা তুলতে চান তিনি। তা হল, গতির পাল্টা গতি। লাজংয়ের বিরুদ্ধে গতিময় ফুটবলের জন্য মহড়া চলছে ইস্টবেঙ্গলে। দ্রুত প্রতি–আক্রমণে গোলের মুখ খুলতে হবে। উইং আক্রমণে জোর দিয়ে বিপক্ষের বক্সে পৌঁছে যেতে হবে। এরকমই সব নীলনকশা সাজাচ্ছেন আলেসান্দ্রো। এদিন, উইং দিয়ে আক্রমণের ওপর জোর দেন স্প্যানিশ কোচ। 
পাহাড়ি দলের বিরুদ্ধে রক্ষণে প্রথম একাদশে হয়তো ফিরতে পারেন সালাম রঞ্জন সিং। সম্ভবত জনি অ্যাকস্টার জায়গায়। সালাম বলেন, ‘কোচ আমাদের ম্যাচ বাই ম্যাচ ভাবতে বলেছেন। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ রয়েছে। তা নিয়ে বেশি না ভেবে নিজেদের কাজটা করতে হবে।’ সোমবার নেরোকার বিরুদ্ধে ড্র করেছে চেন্নাই। লাল–হলুদ শিবিরে স্বস্তি। চেন্নাইকে নিয়ে না ভেবে, ইস্টবেঙ্গলের লক্ষ্য সামনের তিনটে হোম ম্যাচ থেকে পুরো পয়েন্ট পাওয়া।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top